অনলাইন নিউজ পোর্টাল মানুষের চাহিদা পূরণে ভুমিকা রাখছে- শহীদুল ইসলাম

0
217

সিলেট: সিলেটের জেলা প্রশাসক মো: শহীদুল ইসলাম বলেছেন, অনলাইন নিউজ পোর্টাল মানুষের চাহিদা পূরণে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখে যাচ্ছে। এই গণমাধ্যমর জনপ্রিয়তা দিনদিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। মানুষ ক্রমেই ইন্টারনেট নির্ভর হতে যাচ্ছে। একই সাথে অনলাইন সাংবাদিকতার গুরুত্ব ও প্রয়োজনীয়তা বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রত্যেক জিনিসের দুটি দিক রয়েছে, তার একটি হলো ভাল অপরটি হলো মন্দ। সাংবাদিকতা একটি মহান পেশা তাই যারা অনলাইন সাংবাদিকতায় সম্পৃক্ত তাদের উচিত হলো দেশ ও জনগণের কল্যাণে ভাল দিক নিয়ে কাজ করা। সংবাদ প্রচারে বস্তুনিষ্টতার বিকল্প নেই। ইন্টারনেটের মাধ্যমে যেহেতু দ্রæত সংবাদ প্রচার হয় তাই এক্ষেত্রে তুলনা মুলক বেশী সচেতনতা অবলম্বন করতে হবে। ভাল সংবাদ দ্রæত প্রচারের কর্মরতদের প্রশিক্ষনের মাধ্যমে দক্ষতা অর্জন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে সবধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে জেলা প্রশাসক বলেন, সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনের সহায়ক হিসেবেই অনলাইন গণমাধ্যমের জন্য নীতিমালা প্রনয়ন করছে। ওজাসের নবনির্বাচিত কমিটিকে অভিনন্দন জানিয়ে জেলা প্রশাসক বলেন, এই সেক্টরটিকে ভয়াবহ না ভেবে সহজ হিসেবেই গ্রহণ করতে হবে। অনলাইন নিউজ পোর্টালের যৌক্তিকতা ও প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। সার্কিট হাউস ও ডিসির বাস ভবনকে ও ইন্টারনেট সংযুক্ত করা হয়েছে। আমি প্রতিদিন রাতে অনলাইন পত্রিকা গুলো ভিজিট করে জেনে নেই কোথাও কোন ঘটনা ঘটেছে কি না।
বুধবার বিকেলে সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সম্মেলন কক্ষে অনলাইন জার্নালিষ্ট এসোসিয়েশন সিলেট (ওজাস)’র উদ্যোগে ‘ ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠনে অনলাইন গণমাধ্যমের ভুমিকা র্শীর্ষক এক সেমিনার ও ওজাসের নতুন কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।
বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, দৈনিক সিলেটের ডাক’র ব্যবস্থাপনা সম্পাদক দেওয়ান তৌফিক মজিদ লায়েক, সিনিয়র সাংবাদিক ও বালাগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের অধ্যক্ষ লিয়াকত শাহ ফরিদী, সিলেট অনলাইন প্রেসক্লাবের আহবায়ক কবি মুহিত চৌধুরী, কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদের সহ সাধারণ সম্পাদক গল্পকার সেলিম আউয়াল। ওজাস’র সভাপতি আবদুল মুহিত দিদারের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মারুফ হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সেমিনারে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন, ওজাসের সহ সভাপতি ও সিলেট রিপোর্ট ডটকম সম্পাদক মুহাম্মদ রুহুল আমীন নগরী।
অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, ওজাসের প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ইকবাল মাহমুদ, এডভোকেট গোলজার আহমদ হেলাল, বনপার সাধারণ সম্পাদক মেহেদী কাবুল, ওজাসের সহ-সভাপতি আফরোজ খান, কোষ্যধ্যক্ষ-মুন্সি ইকবাল, লিটন, মিসবাহ মন্জুর, তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক- মাজেদুল হক চৌধুরী, সদস্য: মবরুর আহমদ সাজু, মোছা: নাজমিন, শফিকুর রহমান, এম সাইফুর রহমান তালুকদার, আব্দুল বাতিন ফয়সল, সামসুননুর তালুকদার, শাহিদ হাতিমী, আরিফুল ইসলাম, তাসলিমা খানম বিথী, নাজমিন বেগম প্রমুখ। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত করেন, সোলাইমান আল মাহমুদ।

সেমিনানে মূল প্রবন্ধে উলেখ করা হয়, তথ্যপ্রযুক্তি সমৃদ্ধ এক ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার লক্ষ্যে সরকার বহুমুখী কর্মসূচি বাস্তবায়নে কাজ করে যাচ্ছে। ডিজিটাল বাংলাদেশ মানে তথ্য প্রযুক্তি-ভিত্তিক সেবার এমনভাবে প্রসার ঘটানো, যাতে আগে যেসব সেবার জন্য নানা জায়গায় ছুটতে হতো তার আর দরকার হবে না -ঘরে বসেই কম্পিউটারে এবং মোবাইল ফোনে তথ্যা জানা যাবে। সরকারের একসেস টু ইনফরমেশন সেকশনের সেবাগুলোকে তথ্য প্রযুক্তির মাধ্যমে দ্রুততা এবং জবাবদিহিতার সাথে জনগণের আরো কাছাকাছি নিয়ে আসার জন্য কর্মসুচির আওতাধিন সম্পৃক্ত জনবলকে প্রশিক্সিত করতে হবে। প্রযুক্তি-ভিত্তিক সেবাদানের প্রক্রিয়ার আরো প্রসার ঘটলে, এবং কম্পিউটার ও ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যা আরো বাড়লে এই ডিজিটাল বাংলাদেশ সম্পর্কে সাধারণ মানুষের ধারণা আরো পরিষ্কার হবে।
‘ভিশন ২০২১’ সাফল্য অর্জনে যুব সমাজকে কর্মক্ষেত্রে সচেতন করতে হবে। অহেতুক সময় নষ্ট না করে প্রযুক্তির সদ্ব্যবহারে প্রতিনি নাগরিককেই এগিয়ে আসতে হবে। ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়কে যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করতে দেশের শিক্ষা কাঠামোসহ সকল বিভাগকে সম্পূর্ণভাবে ডিজিটালের আওতায় আনতে হবে। ডিজিটাল প্রযুক্তি বা আইসিটিনির্ভর প্রশাসনব্যবস্থা, ব্যবসায়-বাণিজ্য, শিক্ষাব্যবস্থা, চিকিৎসাব্যবস্থা, কৃষি ব্যবস্থাপনা ইত্যাদি সেকশান সঠিক ভাবে পরিচালিত করতে হলে তথ্যের আদান প্রদানকে সহজতর করতে হবে। জবাব দিহিতা নিশ্চিত করতে হবে। আর এক্ষেত্রে অনলাইন নিউজ পোর্টাল বা অনলাইন গণমাধ্যমের ভূমিকা অনস্বীকার্য। জনগনের নিটক দ্রæত ও সহজ উপায়ে তথ্য পৌছার ÿেত্রে অনলাইন গণমাধ্যমই সর্বোত্তম উপায়। কিন্তু রাষ্ট্রিয় সুযোগ সুবিদা প্রাপ্তির ÿেত্রে শূণ্যের কৌঠায় অনলাইন গণমাধ্যম সংশিøষ্টরা। সঠিক সংবাদ দ্রæত সর্বরাহে জীবনের ঝুকিঁ নিয়ে কাজ করতে হয় অনলাইন গণমাধ্যম তথা অনলাইন নিউজ পোর্টালে কর্মরত সাংবাদিকদের। অনেক সময় প্রশাসনিক সেক্টর এবং বিভিন্ন স্পটে তথ্য সংগ্রহে নানা জটিলতা দেখা দেয়। গণমাধ্যম যেহেতু রাষ্ট্রের অন্যতম একটি স্থম্ভ সঙ্গত কারনেই এ সমস্যা নিরসনকল্পে সরকারের সংশিষ্টদের এগিয়ে আসতে হবে। অনলাইন গণমাধ্যমকে তথ্য প্রকাশের স্বাধীনতা প্রদান, তাদের প্রয়োজনীয় সহযোগিতা প্রদান। তথ্য র্নিভর সংবাদ ও সৃজনশীলতার জন্য পুরস্কৃত করা উচিত।

Print Friendly, PDF & Email