আবারও সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছে বিএনপি

0
245

নিজস্ব প্রতিবেদক: নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক) নির্বাচনে আবারও সেনা মোতায়েনের দাবি জানিয়েছে বিএনপি। একই সঙ্গে দলটি নির্বাচন সামনে রেখে ‘দলবাজদের’ সরিয়ে স্থানীয় প্রশাসনকে নিরপেক্ষ করা, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার ও বৈধ অস্ত্র জমা নেওয়ার দাবি জানায়।
শুক্রবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এসব দাবি জানান।
এর আগে গতকাল বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেনও সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবি জানিয়েছিলেন। আর আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী বলেছিলেন, সেনাবাহিনী মোতায়েনের প্রয়োজন নেই।
আইভী এখন সেনাবাহিনী চান না কেন—এমন প্রশ্ন রেখে রিজভী বলেন, এর আগে যখন আইভী স্বতন্ত্র নির্বাচন করেছিলেন, তখন তিনি জানতেন সরকার তাঁকে সাহায্য করবে না, সেই আশঙ্কায় সেনাবাহিনী চেয়েছিলেন। আর এখন সরকারের সহায়তা পাবেন বলে তিনি সেনাবাহিনী মোতায়েন চাইছেন না।
রিজভী বলেন, নারায়ণগঞ্জে বৈধ অস্ত্র জমা দিতে হবে আর অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার করতে হবে। আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচন সুষ্ঠু, অবাধ, নিরপেক্ষ করতে হলে এই অভিযান চালাতে হবে এবং সেনাবাহিনী মোতায়েন করতে হবে। ভোট গ্রহণের দিন আসার আগেই যেন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ‘নামাজে জানাজা’ অনুষ্ঠিত না হয়, সেদিকে নির্বাচন কমিশনকে লক্ষ রাখতে হবে। নির্বাচন যাতে প্রতিযোগিতামূলক, সুষ্ঠু, স্বচ্ছ, অবাধ ও ভোটাররা যাতে নির্বিঘ্নে ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট প্রদান করতে পারেন, সেটি যেন বর্তমান নির্বাচন কমিশন বিদায়ের প্রাক্কালে নিশ্চিত করতে পারে সেদিকে দেশবাসী তাকিয়ে আছে।
রিজভী অভিযোগ করেন, সারা দেশে আওয়ামী লীগ ও তাদের সহযোগী সংগঠনগুলোর নেতা-কর্মীদের হাতে প্রতিনিয়ত মুক্তিযোদ্ধারা নির্যাতিত হচ্ছেন। সম্প্রতি ঝিনাইদহের শৈলকুপায় মুক্তিযোদ্ধা মোক্তার আহমেদ মিজানের ওপর অতর্কিতে লাঠিসোঁটা ও ধারালো অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আক্রমণ চালায় ছাত্রলীগ-যুবলীগের ক্যাডাররা। বিচারহীনতার কারণে এসব জঘন্য ঘটনা ধামাচাপা পড়ে যায়।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির, হারুনুর রশিদ, সহ-আইনবিষয়ক সম্পাদক সানাউল্লাহ মিয়া, সহ-দপ্তর সম্পাদক মো. মনির হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email