ইসলামী আন্দোলনের কর্মসূচি ঘোষণা

0
169

Hatpakha
ঢাকা: সাবেক মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল লতিফ সিদ্দিকীর সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে ডাকা রবিবারের হরতাল প্রত্যাহারের ঘোষণা দিয়েছে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। তবে আগামী ৯ ডিসেম্বর থেকে ১৮ মার্চ পর্যন্ত গণমিছিল, জনসংযোগ, রোর্ড মার্চ, অভিযাত্রাসহ তিন মাসব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে দলটি। শুক্রবার বাদ জুমা বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেটে এক সমাবেশ থেকে এসব কর্মসূচির ঘোষণা দেন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির চরমোনাই পীর মুফতি সৈয়দ রেজাউল করিম।
তিনি বলেন, সমাবেশ করতে দেওয়ায় আগামী রবিবার ডাকা সকাল-সন্ধ্যা হরতাল প্রত্যাহার করা হয়েছে। তবে লতিফ সিদ্দিকীর সর্বোচ্চ শাস্তি দাবিতে আমরা দীর্ঘ মেয়াদী কর্মসূচি অব্যাহত রাখব।
কর্মসূচি মধ্যে রয়েছে- ৯ ডিসেম্বর জেলায় জেলায় বিক্ষোভ-সমাবেশ, ১২ ডিসেম্বর সিলেটে বিভাগীয় সমাবেশ, ২৫ ডিসেম্বর থানায় থানায় বিক্ষোভ, ২৩-২৫ ডিসেম্বর ঢাকা টু কুড়িগ্রাম রোডমার্চ, ৫ থেকে ৭ জানুয়ারি ঢাকা টু সিলেট রোডমার্চ, ৭ থেকে ৯ জানুয়ারি খুলনায় রোডমার্চ, ১০ থেকে ১১ জানুয়ারি খুলনা টু বরিশাল রোডমার্চ, ২১ থেকে ২৩ জানুয়ারি ঢাকা টু চট্টগ্রাম রোডমার্চ করা হবে।
এছাড়া ১৫ থেকে ২৮ ফেব্রুয়ারি গণস্বাক্ষর সংগ্রহ অভিযান, আসন্ন সংসদ অধিবেশন চলাকালে গণমিছিল ও স্মারকলিপি প্রদান এবং ১৮ মার্চ বঙ্গভবন অভিমুখে গণমিছিল ও রাষ্ট্রপতির কাছে স্মারকলিপি দেওয়া হবে বলে জানান সৈয়দ রেজাউল করিম।
তিনি আরো বলেন, এরপরও যদি সরকার ব্লাসফেমি আইন না করে তবে আরো কঠিন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। অবশ্যই সরকারকে পবিত্র হজ ও ইসলাম ধর্ম নিয়ে কটূক্তিকারী লতিফ সিদ্দিকীর সর্বোচ্চ শাস্তি এবং ইসলাম নিয়ে কটূক্তিকারীদের মৃত্যুদণ্ডের বিধান রেখে আইন পাস করতে হবে।
রেজাউল করিম বলেন, বর্তমান সরকার ইসলাম নয়, নাস্তিক্যবাদের পক্ষে। ইসলামের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে ফেরাউন টিকে থাকতে পারেনি, শেখ হাসিনার সরকারও পারবে না।
তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মুখে ইসলামের কথা বললেও তিনি ইসলাম বিরোধী কাজ করে যাচ্ছেন। এদেশে একজন মুসলমান বেঁচে থাকা পর্যন্ত কোনো নাস্তিক ও মুরতাদদের বাংলার মাটিতে স্থান হবে না বলেও হুঁশিয়ারি দেন চরমোনাই পীর।
উল্লেখ্য, আজকের এই সমাবেশ প্রথমে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে হওয়ার কথা থাকলেও পরবর্তীতে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে মহাসমাবেশ করার অনুমতি চায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। পরে প্রশাসনের অনুমতি না পাওয়ায় শুক্রবার বাদ জুমা থেকে বিকেল তিনটা পর্যন্ত বায়তুল মোকাররম মসজিদের উত্তর গেটে মহাসমাবেশ করে তারা।
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির সৈয়দ মুহম্মদ রেজাউল করীমের সভাপতিত্বে সমাবেশে পীর সাহেবের রাজনৈতিক উপদেষ্টা অধ্যাপক আশরাফ আলী আকন, সংগঠনটির মহাসচিব মাওলানা ইউনূস আহমেদ, যুগ্ম-মহাসচিব অধ্যাপক মাওলানা মাহবুবুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মাওলানা ফজলুল হক মৃধা, ঢাকা মহানগরের সভাপতি মাওলানা এটিএম হেমায়েত উদ্দীন প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

Print Friendly, PDF & Email