উন্নয়ন কাজে কেউ বাধা হয়ে দাঁড়ালে তা প্রতিহত করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

0
476

চট্টগ্রাম: আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলেই সব সমস্যার সমাধান করা হয় উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, আমি ব্যবসা করতে ক্ষমতায় আসিনি। জনগণের সেবা করাই আমার কাজ। দুর্নীতি করলে এত উন্নতি করতে পারতাম না। রবিবার বিকেলে চট্টগ্রামে ‘শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার’ প্রকল্পের উদ্বোধন করতে গিয়ে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী। নগরীর পতেঙ্গায় বোট ক্লাবে এ পানি শোধনাগারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করে চট্টগ্রাম ওয়াসা।
প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যে বলেছেন, বাংলাদেশে উন্নয়ন কাজে কেউ বাধা হয়ে দাঁড়ালে তা প্রতিহত করা হবে। উন্নয়নবিরোধী ও অপকর্মকারীদের সতর্ক করে দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘আমি দুর্নীতি করতে, কমিশন খেতে, ব্যবসা করতে ক্ষমতায় আসিনি। উন্নয়ন কাজে গাফিলতি করলে সহ্য করব না। অপকর্ম যদি কেউ করে, সে যেই হোক, তাকে ছাড়ব না।’
অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী পদ্মাসেতুর বিষয়ে বিশ্বব্যাংকের সমালোচনা করে বলেছেন, ‘বিশ্বব্যাংক আমাকে অনেক যন্ত্রণা দিয়েছে। শুধু আমাকে নয়, আমার বোন, ছেলে-মেয়ে, ছেলের বৌ, মন্ত্রী, সচিব, উপদেষ্টা সবাইকে যন্ত্রণা দিয়েছে। কিন্তু আমি চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দিয়েছিলাম। আজ প্রমাণ হয়েছে, বিশ্বব্যাংক মনগড়া বানোয়াট অভিযোগ করেছিল।’
এ সময় আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় এলেই সব সমস্যার সমাধান করা হয় বলেও মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা।
আনুষ্ঠানিকভাবে ‘শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার’ উদ্বোধন করার সময় মন্ত্রিপরিষদের সদস্য, সংসদ সদস্য, সরকারের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তা এবং সংবাদকর্মীরা সেখানে উপস্থিত ছিলেন।
জাপানি দাতাসংস্থা জাইকার অর্থ সহায়তায় ১ হাজার ৮৪৮ কোটি ৫২ লাখ টাকা ব্যয়ে এই প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করা হয়েছে।
চট্টগ্রাম শহর থেকে ৪৫ কিলোমিটার দূরে রাঙ্গুনিয়ার পোমরায় বাস্তবায়ন করা হয় এ প্রকল্পটি। প্রকল্পের কাজ শেষ হওয়ায় এখান থেকে এখন দিনে ১৪ কোটি লিটার পানি পাওয়া যাচ্ছে। এতদিন চট্টগ্রাম ওয়াসার পানি উৎপাদনের ক্ষমতা সর্বোচ্চ ১৮ কোটি লিটার থাকলেও এই প্রকল্পে পানি যোগ হওয়ায় এখন পানি উৎপাদনের ক্ষমতা সর্বোচ্চ ৩২ কোটি লিটারে পৌঁছেছে।
চলতি বছর ১৯ জানুয়ারি ‘শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার’ হিসেবে এটির নামকরণ করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। এর আগে গত বছরের ১ নভেম্বর থেকে নতুন এই প্রকল্পের পানি পরীক্ষামূলকভাবে সরবরাহ শুরু করে চট্টগ্রাম ওয়াসা।
চট্টগ্রাম মহানগরীতে প্রতিদিন গড়ে ১৪ কোটি লিটার পানি সরবরাহ হচ্ছে ‘শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার’ প্রকল্প থেকে। এ প্রকল্পের মাধ্যমে নগরবাসীর প্রায় ৭০ শতাংশ পানির চাহিদা পূরণ হবে বলে আশা করছে চট্টগ্রাম ওয়াসা কর্তৃপক্ষ।
চট্টগ্রাম নগরী থেকে প্রায় ৪৫ কিলোমিটার দূরে রাঙ্গুনিয়ার পোমরায় কর্ণফুলী নদীর তীরে সাড়ে ৩৫ একর জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ‘শেখ হাসিনা পানি শোধনাগার’। প্রতিদিন গড়ে এ প্রকল্প থেকে সরবরাহ হচ্ছে ১৪ কোটি লিটার পানি। চট্টগ্রাম নগরীতে পানির দৈনিক চাহিদা ৫০ কোটি লিটারের বেশি।

Print Friendly, PDF & Email