এ দুই ঘটনায় সব অর্জন ম্লান হয় না: প্রধানমন্ত্রী

0
143
ফাইল ছবি

ঢাকা: জাতিসংঘে আমরা অনেক কিছু অর্জন করেছি। আর ইতালীয় ও জাপানি নাগরিক হত্যায় আমাদের সব অর্জন ম্লান হয়ে যায় না বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। জাতিসংঘের ৭০তম সাধারণ অধিবেশন থেকে ফিরে রোববার সকাল সাড়ে ১১টায় গণভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

এসময় তিনি আরো বলেন, জাতিসংঘের মিলেনিয়াম লক্ষ্য অর্জনে বাংলাদেশ অনেকখানি এগিয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশে গ্রাম ও শহরের অর্থনৈতিক উন্নয়নের বৈষম্য কমে এসেছে। ভবিষ্যতের বাংলাদেশের জন্য অনেক সুন্দর সময় অপেক্ষা করছে।

এসময় প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘের ৭০তম সাধারণ অধিবেশনে যে সকল আলোচনা করেছেন এবং যেসকল কর্মসূচীতে অংশ গ্রহণ করেছেন তার সব কিছুই সাংবাদিকদের কাছে তুলে ধরেন। সম্মেলনে যোগ দিতে গত ২৪ সেপ্টেম্বর নিউ ইয়র্ক পৌঁছান প্রধানমন্ত্রী। লন্ডন হয়ে শনিবার দেশে ফেরেন শেখ হাসিনা।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে বক্তব্য দেন বাংলাদেশের সরকার প্রধান। তিনি সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদ মোকাবেলায় বিশ্বনেতাদের এক হওয়ার আহবান জানান। এই সফরে তিনি ‘চ্যাম্পিয়নস অফ দি আর্থ’ ও ‘আইসিটি টেকসই উন্নয়ন পুরস্কার’ গ্রহণ করেন।

আইটিইউ’র ১৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরে ২৬ সেপ্টেম্বর সংস্থার মহাসচিব হাউলিন ঝাও শেখ হাসিনার হাতে ‘আইসিটি টেকসই উন্নয়ন পুরস্কার’ তুলে দেন। তথ্য-প্রযুক্তিতে অগ্রগতির স্বীকৃতি হিসেবে আন্তর্জাতিক টেলিযোগাযোগ সংস্থা (আইটিইউ) বাংলাদেশকে এ পুরস্কারে ভূষিত করে। পরদিন ২৭ সেপ্টেম্বর প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘের ‘চ্যাম্পিয়নস অফ দি আর্থ’ পুরস্কার গ্রহণ করেন। জাতিসংঘের আন্ডার সেক্রেটারি জেনারেল ও জাতিসংঘ পরিবেশ কর্মসূচির (ইউএনইপি) নির্বাহী পরিচালক অ্যাচিম স্টেইনার নিউ ইয়র্কে এক অনুষ্ঠানে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর হাতে এই পুরস্কার তুলে দেন।

গত ২৮ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ সদর দপ্তরে শান্তিরক্ষা বিষয়ক সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সঙ্গে কো-চেয়ারের দায়িত্ব পালন করেন শেখ হাসিনা। জাতিসংঘ সাধারণ অধিবেশনের ফাঁকে অনুষ্ঠিত এই সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী শান্তিরক্ষা কার্যক্রমে আরো জোরালো ভূমিকা রাখার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়ন বিষয়ক আরও একটি আলোচনার উদ্বোধনী অধিবেশনেও কো-চেয়ার হন প্রধানমন্ত্রী। ২৬ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘ সদর দপ্তরে অনুষ্ঠিত এ অধিবেশনে ‘মেধাস্বত্ব আইন’ পর্যালোচনার আহ্বান জানান তিনি।
একইদিন প্রধানমন্ত্রী জাতিসংঘ সদর দপ্তরের সম্মেলন কেন্দ্রে দক্ষিণ-দক্ষিণ সহযোগিতা বিষয়ে এক গোলটেবিল আলোচনাতেও অংশ নেন।

২৭ সেপ্টেম্বর নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দপ্তরে লিঙ্গ সমতা ও নারীর ক্ষমতায়ন নিয়ে বিশ্ব নেতাদের এক বৈঠকে অংশ নেন প্রধানমন্ত্রী। ২৯ সেপ্টেম্বর এমডিজি ও এসডিজি বিষয়ক এক উচ্চপর্যায়ের আলোচনায়ও বক্তব্য রাখেন তিনি।
প্রধানমন্ত্রী ২৫ সেপ্টেম্বর যুক্তরাষ্ট্রের কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে ভাষণ দেন। সফরে চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং, জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে এবং নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুটের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠক করেন শেখ হাসিনা।

Print Friendly, PDF & Email