কিছু ব্যক্তির কথা সংযত হলে ভালো হয়: ড. এমাজউদ্দীন

0
421

Dr. Emaz Uddin
স্টাফ রিপোর্টার: রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ বলেছেন, দেশের চলমান অস্থিতিশীল অবস্থা নিরসনে দুই পক্ষকেই এগিয়ে আসতে হবে। কিছু কিছু ব্যক্তি আছেন, যাদের কথা আরো সংযত হলে ভালো হয়। রোববার বিকেল পাঁচটা ১৫ মিনিটের দিকে ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের এক সরাসরি সম্প্রচার অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন।
এসএসসি পরীক্ষার তারিখ পিছিয়ে দেয়ার জন্য শিক্ষামন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমেদ বলেন, শিক্ষামন্তী ভালো একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তার সাথে আমার পারস্পরিক সম্মানবোধের সম্পর্ক রয়েছে। আমি তাকে সম্মান করি। তিনি পরিস্থিতির বিচারে সঠিক সিদ্ধান্তটিই নিয়েছেন। আশা করি সামনেও হরতাল, অবরোধের কথা বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নেবেন। ছাত্র-ছাত্রীরা উপস্থিত থাকতে পারবেন কিনা, পরিস্থিতির বিচারে সেটাও বিবেচনা করবেন।
বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাথে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলের নেতাকর্মীদের দেখা করার সুযোগ দিলে চলমান সঙ্কটের উন্নতি হতে পারে বলে তিনি মনে করেন।
ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ বলেন, বেগম খালেদা জিয়া সন্তান হারিয়ে, একরকম বন্দী অবস্থায় থেকে সুস্থ অবস্থায় নেই। তাই তার সাথে দলের নেতাকর্মীদের দেখা করার সুযোগ দেয়া উচিত।
বর্তমান পরিস্থিতির জন্য কারা দায়ি, এমন এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি মনে করি অত্যন্ত হালকা কারণে এ পরিস্থিতির সূচনা হয়েছে। ২০ দলীয় জোট পাঁচ তারিখে একটা সমাবেশ করতে চেয়েছে। গণতান্ত্রিক দেশে মিছিল করা, সমাবেশ করা আইনত অধিকার। তখন যদি তাদেরকে এ অধিকারটুকু দেয়া হতো, তাহলে আজকের পরিস্থিতির তৈরি হতো না।
তিনি বলেন, আমি রাষ্ট্রবিজ্ঞানী হিসেবে নয় একজন নাগরিক হিসেবে বলবো, আমার বক্তব্য খুব সোজা। এ দেশে গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা ছাড়া অন্য কোনো ব্যবস্থার দিকে তাকাবার সুযোগ নেই। গণতান্ত্রিক ব্যবস্থাকে বাদ দিয়ে অন্য ব্যবস্থা টিকবে না।
অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমেদ মাননীয় রাষ্ট্রপতির উদ্দেশে বলেন, মাননীয় রাষ্ট্রপতি জাতির অভিবাবক। তিনি যদি দু’জনকে কাছে ডাকেন, তাহলে তার ডাকে দু’জনেই সাড়া দেবেন। তার এ উদ্যোগের মাধ্যমে এ সমস্যা শেষ হয়ে যেতে পারে। আমরা যখন সংলাপের কথা বলি, তখন দুই পক্ষকেই ছাড় দিতে হবে। কিছু ছাড় না দিয়ে সংলাপ কখনো অর্থবোধক হয় না। আমি মনে করছি যাদের সাথে পরামর্শ করে বেগম জিয়া সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন, এ ব্যক্তিদেরকে তার সাথে দেখা করতে দেয়া উচিত।

Print Friendly, PDF & Email