কেমুসাসের কমিটি ঘোষণা: সভাপতি- আজিজ, সম্পাদক- মানিক

0
488

kemusas
সিলেট: দেশের প্রাচীনতম সাহিত্য প্রতিষ্ঠান কেন্দ্রীয় মুসলিম সাহিত্য সংসদ (কেমুসাস) কার্যনির্বাহী কমিটির নাম ঘোষণা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কেমুসাসের শহীদ সুলেমান হলে অনুষ্ঠিত সংসদের ৭৮বর্ষের বার্ষিক সাধারণ সভায় উপস্থিত জীবন সদস্যদের সম্মতিক্রমে গঠিত সাবজেক্ট কমিটি সংসদের ২০১৫-১৬ সেশনের কার্যনির্বাহী কমিটির নাম ঘোষণা করে।
সিলেটের বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ প্রফেসর মো. আব্দুল আজিজকে সভাপতি ও বিশিষ্ট লেখক সাংবাদিক আজিজুল হক মানিককে সাধারণ সম্পাদক করে গঠিত ২৩ সদস্যের কমিটির অন্যান্য কর্মকর্তারা হলেন সহসভাপতি আ.ন.ম শফিকুল হক, অ্যডভোকেট আজিজুল মালিক চৌধুরী, আব্দুল হামিদ মানিক, আজিজ আহমদ সেলিম ও আব্দুল বাসিত মোহাম্মদ, সহসাধারণ সম্পাদক দেওয়ান মাহমুদ রাজা চৌধুরী, কোষাধ্যক্ষ ছয়ফুল করিম হায়াত, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সাদেক লিপন, পাঠাগার সম্পাদক নাজমূল আনসারী, সদস্য শামসুল আলম চৌধুরী, অধ্যক্ষ মাসউদ খান, হারুনুজ্জামান চৌধুরী, মুজিবুর রহমান চৌধুরী, প্রফেসর নন্দলাল শর্মা, লাভলী চৌধুরী, শব্বির জালালাবাদী, সৈয়দ মিসবাহ উদ্দিন, দেওয়ান তৌফিক মজিদ লায়েক, আহমদ মাহবুব ফেরদৌস, ড. মোস্তাক আহমদ দীন ও সৈয়দ মো. তাহের।
সাবজেক্ট কমিটির সদস্যরা ছিলেন দৈনিক পুণ্যভূমি সম্পাদক মুকতাবিস-উন-নূর, আয়কর উপদেষ্টা হাসনু চৌধুরী ও সমাজসেবী মকবুল হোসেন। এর আগে উপস্থিত জীবন সদস্যদের সম্মতিতে নির্বাচন কমিশন বিলুপপ্ত ঘোষণা করা হয়।
বার্ষিক সাধারণ সভায় সভাপতিত্ব করেন সংসদের বর্তমান সভাপতি হারুনুজ্জামান চৌধুরী। সহসাধারণ সম্পাদক সেলিম আউয়ালের সঞ্চালনায় সংসদের বার্ষিক প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন এবং পরবর্তীতে জবাবী বক্তব্য রাখেন সংসদের সাধারণ সম্পাদক গবেষক আব্দুল হামিদ মানিক। সভাপতির বক্তব্যে হারুনুজ্জামান চৌধুরী বলেন, সংসদের সদস্য সংখ্যা বেড়েছে। সমস্যা বাড়বেই। তবে কোনো সমস্যা যেন আমাদের ইতিহাস-ঐতিহ্যে আঘাত না করে সেদিকে আমাদের লক্ষ্য রাখতে হবে। সংসদের পাঠাগারকে সিলেটের গর্বের ধন উল্লেখ করে তিনি বলেন, এগুলোকে আমাদের রক্ষা করতে হবে।
অনুষ্ঠানে আয়-ব্যায়ের হিসাব, অডিট রিপোর্ট, প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করেন কোষাধ্যক্ষ সৈয়দ মুহিবুর রহমান। শোকপ্রস্তাব পাঠ করেন অধ্যাপক কবি বাছিত ইবনে হাবীব। আগের বছরের সাধারণ সভার কার্যবিবরণি পাঠ করেন কবি মামুন সুলতান।
আলোচনায় অংশ নেন ডা. এমএ সালাম, ফজলুল করিম আজাদ, অধ্যক্ষ আতাউর রহমান পীর, মো. বুরহান উদ্দিন, এম আলী ইসমাইল, মো. আব্দুল মালিক, মো. এহসানুল হক তাহের, শাহ সুহেল আহমদ, আব্দুল গাফফার দিলিপ, শাহেদ আহমদ, সৈয়দ আশরাফ হোসেন, আব্দুস সামাদ নজরুল, মামুন সুলতান, শামীমা কালাম, বাদশা গাজী ও মো. মাহবুবুল হক।
সাধারণ সম্পাদকের বক্তব্যে গবেষক আব্দুল হামিদ মানিক বলেন, সমস্যা-সম্ভাবনা মিলিয়েই আমাদের এগিয়ে যেতে হবে। কোনো সমস্যা দেখেই বিমর্ষ কিংবা দ্বিধাগ্রস্ত হওয়া ঠিক নয়। কারণ সমস্যা মানুষই সৃষ্টি করে আবার মানুষই সমাধান করে। তিনি আগামীতে সংসদের ইতিহাস-ঐতিহ্যকে সমুন্নত রাখতে সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।-বিজ্ঞপ্তি

Print Friendly, PDF & Email