কোনো পরীক্ষার্থীর ক্ষতি হলে দায় বিএনপির: শিক্ষামন্ত্রী

0
153

Nurul Islam Nahid

স্টাফ রিপোর্টার: এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা চলাকালে নাশকতায় কোনো পরীক্ষার্থীর ক্ষতি হলে তার দায় বিএনপি-জামায়াতকে নিতে হবে বলে হুঁশিয়ার করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে মন্ত্রী বলেন, আমি হরতাল-অবরোধ ও সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনাকারী জোটের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি পরীক্ষার্থীদের শান্তিপূর্ণভাবে পরীক্ষা দিতে দিন। দয়া করে কোনো হঠকারী ঘটনা ঘটাবেন না।
শিক্ষামন্ত্রী বলেন, দেশের যে কোনো স্থানে আমাদের একজন পরীক্ষার্থীরও যদি কোনো ক্ষতি হয়, তার দায়দায়িত্ব আপনাদেরকেই (বিএনপি-জামায়াতকে)বহন করতে হবে। মানুষ আপনাদের ক্ষমা করবে না।
নাহিদ বলেন, সংকটের মধ্যে এসএসসি পরীক্ষা শেষ হতে না হতেই এইচএসসি পরীক্ষা শুরু হচ্ছে। জাতির দুর্ভাগ্য যে, একটি রাজনৈতিক জোটের বিবেকবর্জিত অব্যাহত হরতাল-অবরোধের কারণে এসএসসির রুটিন অনুযায়ী একটি পরীক্ষাও নেওয়া সম্ভব হয়নি।
তিনি বলেন, পরীক্ষার্থী, অভিভাবক, শিক্ষকসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের দাবি, মতামত ও পরামর্শের প্রতি সম্মান দেখিয়ে আমরা যে কোনো পরিস্থিতিতে রুটিনমাফিক পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছি। এর কোনো ব্যত্যয় হবে না।
পরীক্ষার্থীদের যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাবাহিনীর সর্বাত্মক নজরদারি থাকবে উল্লেখ করে শিক্ষামন্ত্রী পরীক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, ইতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গিসম্পন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মী, সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের সদস্য, সাধারণ জনগণ তোমাদের পাশে আছে। তোমরা নিশ্চিন্ত মনে পরীক্ষা দেবে। অবরোধের মধ্যেই এবার এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষায় বসছেন ১০ লাখ ৭৩ হাজার ৮৮৪ জন শিক্ষার্থী।
আগামী ১ এপ্রিল থেকে ১১ জুন পর্যন্ত এইচএসসি ও সমমানে তত্ত্বীয় বিষয়ের পরীক্ষা হবে। আর ব্যবহারিক পরীক্ষা হবে ১৩ জুন থেকে ২২ জুন। বিএনপি জোটের অবরোধ-হরতালে চলতি এসএসসি ও সমমানের সবগুলো অর্থাৎ, ১৬ দিনের ৩৬৮টি পরীক্ষা পেছাতে বাধ্য হয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। পরীক্ষাগুলো নেয়া হয় ছুটির দিনে, শুক্র ও শনিবার।

Print Friendly, PDF & Email