খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির জন্য কেউ আবেদন করেননি

0
287

ঢাকা: বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার প্যারোলে মুক্তির বিষয় নিয়ে তিনি ও তার পরিবারের কেউ কোনো আবেদন করেননি। এমনকি সরকারের পক্ষ থেকেও প্যারোলে মুক্তি দেওয়ার কোনো প্রস্তাব দেওয়া হয়নি বলে জানিয়েছেন তার আইনজীবী ও সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন।

বুধবার ‍সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি মিলনায়তনে সমিতির বিদায়ী কমিটির সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার খোকন এসব কথা বলেন।

এ সময় সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সিনিয়র সহসম্পাদক কাজী জয়নাল আবেদীন, কোষাধ্যক্ষ নাসরিন আক্তার, সদস্য মো. আহসান উল্লাহ উপস্থিত ছিলেন।

খালেদা জিয়ার আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুবউদ্দিন খোকন বলেন, ‘প্যারোলে মুক্তির বিষয়টি শুধু গণমাধ্যমেই আমরা জেনেছি। খালেদা জিয়ার অসুস্থতা নিয়ে দৃষ্টি ভিন্ন দিকে নিতে এটা একটা কৌশল হতে পারে। সরকার বঙ্গবন্ধু মেডিকেল কলেজ হাসপাতালকে ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার করে খালেদা জিয়াকে কেরানীগঞ্জ কারাগারে নেওয়ার ষড়যন্ত্র করছে।’

আইনজীবী সমিতির বিদায়ী সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন বলেন, অসুস্থ বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তিতে সরকারের সদিচ্ছা নেই। রাজনৈতিক মামলা দিয়ে তাকে দীর্ঘদিন ধরে কারাবন্দি করে রাখা হয়েছে। তাঁকে দিন দিন মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

জয়নুল আবেদীন বলেন, কোনো মামলায় খালেদা জিয়াকে হাইকোর্ট জামিন দিলেও সরকারের পক্ষ থেকে বারবার জামিন স্থগিত চেয়ে আবেদন করা হয়। অ্যাটর্নি জেনারেল রাষ্ট্রের জন্য কাজ না করে সরকারের অ্যাটর্নি জেনারেল হিসেবে কাজ করছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে গত সোমবার দুপুর পৌনে ১টায় ঢাকার পুরোনো কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে নেওয়া হয়।

এদিকে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, ‘খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার নামে মৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে।’ এমনকি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের পরিচালক সরকারের সুরে কথা বলছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

বুধবার রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে শবেমিরাজ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা ও দোয়া মাহফিলে এসব কথা বলেন রুহুল কবির রিজভী।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের কাছে ভয় হচ্ছে যে কারাগারের মধ্যে তাঁকে (খালেদা জিয়াকে) চিকিৎসার নামে কোনো স্লো পয়জনিং করা হচ্ছে কি না, এটা এখন জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। আজকে তিনি এত গুরুতর অসুস্থ হলেন কেন?’

খালেদা জিয়ার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি ও সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে রিজভী বলেন, ‘নিঃশর্ত মুক্তি চাই। মুক্তি দিতেই হবে। এ দেশ যদি সত্য হয়, এ দেশের মানুষের সংগ্রামী অতীত যদি সত্যি হয়, তাহলে শেখ হাসিনার তাখতে তাউস আর বেশি দিন নাই। তাখতে তাউস, তাঁর ময়ূরের সিংহাসন থরথর করে কাঁপতে শুরু করেছে। এখন যেকোনো সময় হুড়মুড় করে পড়ে যাওয়ার সময় চলে এসেছে।’

খালেদা জিয়ার চিকিৎসা প্রসঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের পরিচালকের সমালোচনা করে বিএনপি নেতা বলেন, ‘হাসপাতালের পরিচালক অসুস্থ খালেদা জিয়াকে সুস্থ বলেছেন। মূলত চাকরি বাঁচাতেই তিনি এ ধরনের মিথ্যাচার করেছেন।’

এসব ছাড়াও রাষ্ট্রীয় মূল স্তম্ভগুলোর মধ্যকার ভারসাম্য নষ্ট করে গণতন্ত্রকে অপমৃত্যুর দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে বলে মন্তব্য করেন রুহুল কবির রিজভী। বিচার বিভাগ সঠিকভাবে নিজ দায়িত্ব পালন করলে সরকার গণতন্ত্রকে এভাবে নস্যাৎ করতে পারত না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email