খুন বন্ধ না করলে সরকার আরো কঠোর হবে: প্রধানমন্ত্রী

0
162

Hasina
ঢাকা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, সারাদেশে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীরা পেট্রলবোমা মেরে, গাড়িতে আগুন দিয়ে মানুষ খুন করছে। এগুলো বন্ধ না করলে তার সরকার আরো কঠোর হতে বাধ্য হবে। তিনি বুধবার সকালে ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহের উদ্বোধনী ভাষণে এ হুঁশিয়ারি দেন।
রংপুরে বাসে আগুন দিয়ে চারজনকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘এর নিন্দা জানানোর ভাষা তার জানা নেই। বরং আমি এটাই বলব- এ ধরনের কর্মকাণ্ড থেকে বিরত থাকুন। আর তা না হলে আমাদের আরো কঠোর পদক্ষেপ নিতে হবে।’
তিনি বলেন, ‘এটা তো রাজনীতি না। এটা জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ড, এটা সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড। এদের বিরুদ্ধে সারাদেশকে, সারাদেশের মানুষকে রুখে দাঁড়াতে হবে।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘সারাদেশে বিএনপি-জামায়াতের সন্ত্রাসীরা মানুষ খুন করছে। গাড়িতে আগুন দিয়ে যেভাবে তারা নিরীহ মানুষকে হত্যা করা হচ্ছে, তার নিন্দা জানানোর ভাষা আমার জানা নেই।’
খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘বিএনপি ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে না এসে ভুল করেছে। বিএনপি নেত্রীর সেই ভুলের খেসারত জনগণ কেন দেবে?’
শেখ হাসিনা বলেন, গত এক বছরে সরকার বিভিন্ন ক্ষেত্রে যে কাজ করেছে তাতে বাংলাদেশ বিশ্বে মর্যাদার আসন পেয়েছে; উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্থান করে নিয়েছে।
তিনি বলেন, সরকার ১ জানুয়ারিতে স্কুলের ছেলেমেয়েদর বই দিয়েছে, যাতে তাদের একটি দিনও নষ্ট না হয়।
অন্যদিকে ‘বিএনপি-জামায়াত জোট’ নতুন বছরের শুরু থেকেই হরতাল-অবরোধ করে আগুন দিয়ে ‘মানুষ মারছে’ বলে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী।
তিনি বলেন, মানুষকে পুড়িয়ে মারা, এটা কি ধরনের আন্দোলন- এটা আমি জানি না। আমরা রাজনীতি করি তো মানুষের জন্য, মানুষের কল্যাণের জন্য। কিন্তু রাজনৈতিক ফায়দা হাসিলের কথা চিন্তা করে মানুষকেই যদি মারা হয়, মানুষকেই যদি এভাবে পঙ্গু করে দেওয়া হয়, একেকটা পরিবারকে যদি ধ্বংসের দিকে ঠেলে দেওয়া হয়, তাহলে কার জন্য রাজনীতি? কিসের জন্য রাজনীতি?
নিবন্ধন বাতিল হওয়ায় জামায়াত নির্বাচন করতে পারেনি বলেই বিএনপি গতবছর ৫ জানুয়ারির ভোট বর্জন করেছিল বলে মন্তব্য করেন শেখ হাসিনা।
বিশ্ব ইজতেমার মধ্যেও হরতাল-অবরোধ চালিয়ে যাওয়ায় বিএনপির সমালোচনা করে তিনি বলেন, ঈদে মিলাদুন্নবী, বিশ্ব ইজতেমার মধ্যেও অবরোধ দিয়ে রেখেছে। আবার এরাই ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করে, এটাই আমাদের দুর্ভাগ্য।

Print Friendly, PDF & Email