গণকান্না কর্মসূচী ছাড়া আমাদের উপায় নেই: কাজী আকরাম

0
246

Kaji Akram
ঢাকা: সরকারকে রাজনৈতিক সমস্যা রাজনৈতিকভাবে সমাধানের দাবি জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। তারা এ জন্য সহিংসতা বন্ধ ও সংলাপের আহবান জানিয়েছেন। প্রয়োজনে দেশের স্বার্থে সরকারকে নমনীয় ও ছাড় দেয়ার আহবান জানান তারা। হরতাল-অবরোধে দেশের অর্থনীতি মারাত্মক ক্ষতির শিকার হয়েছে জানিয়ে তারা বলেন, এ অবস্থা আরো দীর্ঘায়িত হলে আমাদের পথে বসতে হবে, তখন গণকান্না কর্মসূচি দেয়া ছাড়া বিকল্প থাকবে না।
সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে টাইম ওয়াচ আয়োজিত “অর্থনীতিতে রাজনৈতিক অস্থিরতার প্রভাব” শীর্ষক এক সংলাপে তারা এ কথা বলেন। এতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বাংলাদেশের শীর্ষ ব্যবসায়ী সংগঠন এফবিসিসিআই-এর সভাপতি কাজী আকরাম উদ্দিন আহমেদ বলেন, হরতাল ও অবরোধের কারণে বিগত বাজেটের অর্ধেকের চেয়েও বেশি ক্ষতি হয়েছে।
মানববন্ধন, সমাবেশ, বিক্ষোভের মত কর্মসূচি পালনের পর ব্যবসায়ীরা আজ ক্লান্ত হয়ে পড়েছে দাবি করে এই ব্যবসায়ী নেতা বলেন, আমরা আজ ভাগ্যাহত, আশাহত। আমরা ভেঙ্গে পড়েছি। আর কোন সমাধানের কোন পথ খুঁজে পাচ্ছি না। তাই আজ আমরা কান্না শুরু করেছি।
সরকারের উদ্দেশ্যে কাজী আকরাম বলেন, মানুষের জান-মালের নিরাপত্তা দেয়া আপনাদের অতীব দায়িত্ব। তাই মানুষের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করুন। আর অন্যদের বলব আর ভোগাবেন না। রাজনৈতিক সমস্যা রাজনৈতিকভাবে সমাধান করুন। সংলাপ ও সমাঝোতা যে ভাবেই হোক সংকট নিরসন করুন।
তিনি অবিলম্বে সহিংসতা বন্ধ করার আহবান জানিয়ে বলেন, আপনারা হরতাল অবরোধ বন্ধ করুন তাহলে আমরা সরকারকে চাপ দেব শান্তির পথে আসার জন্য।
সভাপতির বক্তব্যে নওগাঁ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাষ্টির প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ আলী দ্বীন বলেন, ব্যবসায়ীরা সরকারকে বাঁচিয়ে রেখেছে। কিন্তু সেই ব্যবসায়ীরা আজ পথে বসেছে। তিনি সরকারের উদ্দেশ্যে বলেন, দেশ ও জনগনের স্বার্থে আপনারা একটু নমনীয় হন, ছাড় দেন। তাহলে আপনাআপনি সমাধান হয়ে যাবে। আগামী ২৬ মার্চের আগে দেশের এ পরিস্থিতি সমাধান হওয়ারও আশাবাদ ব্যক্ত করেন এ ব্যবসায়ী নেতা।
পর্যটন ব্যবসায়ী অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি জামিউল আহমেদ বলেন, এক সময় হয়তো আন্দোলন শেষ হবে। কিন্তু ট্যুরিজমের যে ক্ষতি হলো তা পূরণ হওয়ার নয়। অনেকে পথে বসে যাবে। আমাদের এখন গণকান্না কর্মসূচি দেয়া ছাড়া কোন উপায় নেই।
বাংলাদেশ সিএনজি ওনার্স এসোসিয়েশনের আহ্বায়ক মাসুদ খান বলেন, ব্যবসায়ীরা আতংকিত। রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা ছাড়া এর সমাধান হবেনা। তিনি সংলাপের মাধ্যমে সরকারকে সমাধানের উপায় বের করার আহবান জানিয়ে বলেন, দুই পক্ষকেই অনড় অবস্থা থেকে সরে এসে সহিংসতা বন্ধ ও আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে হবে। নাহলে দেশ ধ্বংস হয়ে যাবে।
বাংলাদেশ ট্যারিফ কমিশনের চেয়ারম্যান ড. মুজিবুর রহমানের সঞ্চালণায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন রিহ্যাব সভাপতি আলমগীর শামসুল আলমীন। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন, টাইম ওয়াচের উপদেষ্টা সম্পাদক বজলুর রায়হান।

Print Friendly, PDF & Email