গণদাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত গণআন্দোলন অব্যাহত থাকবে

0
235

Salah Uddin Ahmed
ঢাকা: নির্দলীয় সরকারের অধীনে অবাধ নির্বাচনসহ সকল গণদাবি পূরণ না হওয়া পর্যন্ত শান্তিপূর্ণ অবরোধ-হরতাল এবং গণআন্দোলন অব্যাহত থাকবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব সালাহ উদ্দিন আহমেদ। সোমবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে তিনি এ মন্তব্য করেন।
সালাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘বর্তমানে রাষ্ট্রের সকল অঙ্গই শাসন বিভাগের হাতে বন্দী। এক ব্যক্তির ইচ্ছার প্রতিফলন হচ্ছে বিচার বিভাগ, আইন বিভাগ ও শাসন বিভাগে। মানুষের মৌলিক ও মানবাধিকারের শেষ চিহ্নটুকু বিলুপ্ত প্রায়। বিচার বিভাগকে বিরোধী দল ও ভিন্নমত দমনের হাতিয়ারে পরিণত করেছে সরকার। অবৈধ সরকার ন্যায্য গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনকে দমনের শেষ চেষ্টা হিসেবে আদালতকে ব্যবহার করে আওয়ামী লীগ তাদের রাজনৈতিক দেউলিয়াত্বকেই স্বীকার করে নিয়েছে প্রকারান্তরে। স্বাধীনতা পরবর্তী মুজিব সরকার বিচার বিভাগকে শাসন বিভাগের নিয়ন্ত্রণাধীন এবং অধীনস্থ বিভাগে পরিণত করেছিল সাংবিধানিক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে। আওয়ামী লীগের ইতিহাস বিচার বিভাগের স্বাধীনতা হরণের ইতিহাস।
সালাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, আইন বিভাগ অর্থাৎ সার্বভৌম সংসদ এখন ‘বিকাশ মার্কা’ এমপিদের আড্ডাখানা। জাতীয় সংসদ এখন জাতীয় বিষয়াদি ও আইন প্রণয়নের কেন্দ্র বিন্দু নয়; এটা এখন বিএনপি ও বেগম খালেদা জিয়া এবং জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে বিষোদগার কেন্দ্র। সংসদে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী যে ভাষায় বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বিষোদগার করেছেন গতকাল (রোববার) তার নিন্দা জানানোর ভাষা আমাদের জানা নেই।
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার খাবার ও পানি সরবরাহ বন্ধ করে দিয়ে যে মাত্রাজ্ঞানহীন, ঘৃণ্য ও নিষ্ঠুর বাড়াবাড়ি আপনি প্রদর্শন করছেন তার পরিণাম কখনোই শুভ হবে না।
বিবৃতিতে সালাহ উদ্দিন আহমেদ বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস, বিচার বহির্ভূত হত্যাকা-, গুম, খুন, অপহরণ, জুলুম-নির্যাতন, হামলা-মামলা ও গণগ্রেফতারের দায়ভার হুকুমদাতা হিসেবে প্রধানমন্ত্রীকেই নিতে হবে। রাষ্ট্রশক্তির দমন-পীড়নের প্রতিক্রিয়ায় গণশক্তির বহুমাত্রিক উত্থান হয়েছে আজ।
তিনি বলেন, গণবিরোধী গণমাধ্যম নীতিমালা প্রণয়ন করে ভয়-ভীতি প্রদর্শন, সংবাদপত্র ও টিভি চ্যানেল বন্ধ, সম্পাদক ও টিভি চ্যানেল মালিকদের গ্রেফতার ও হয়রানি করে, মিডিয়া নিয়ন্ত্রণ করে সরকার এখন কেবল টেলিভিশনেই তার অস্তিত্ব প্রকাশ করে চলেছে। টেলিভিশনের বাক্স থেকে বেরিয়ে এসে জনগণের আওয়াজ শুনুন, পুলিশ পাহারা পরিত্যাগ করে মন্ত্রী-নেতাদের রাস্তায় এবং এলাকা সফর করতে বলুন-তাহলেই সরকারের দিগম্বর দানবীয় চেহারা পরিলক্ষিত হবে।
বিবৃতিতে সালাহ উদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, গতকাল (রোববার) মাগুরা জেলার শালিখা উপজেলার বিএনপি নেতা কাজী মশিয়ার রহমানকে ওসি বিপ্লব কুমার নাথের নেতৃত্বে গুলি করে ঠা-া মাথায় হত্যা করা হয়। একইভাবে দিনাজপুরের চিরিরবন্দরে রানীরবন্দর শাখার ছাত্রশিবিরের সভাপতি মতিয়ার রহমানকে যৌথবাহিনী গত ১৪ ফেব্রুয়ারি প্রকাশ্যে গুলি ও নৃশংস অত্যাচারের মাধ্যমে হত্যা করে। আমরা সরকারি বাহিনীর এহেন জঘন্য নরহত্যার ধিক্কার ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে এহেন ঘটনায় দায়ী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে মানবতা বিরোধী আদালতে বিচারের ব্যবস্থা করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email