ছাতকে দু’গ্রামবাসীর সংঘর্ষে আহত দেড়শতাধিক

0
117

নিজস্ব প্রতিবেদক: ছাতকের কালারুকা ইউনিয়নের মাধবপুর ও খারগাঁও গ্রামবাসীর মধ্যে আড়াই ঘন্টাব্যাপী সংঘর্ষে প্রায় দেড়শতাধিক লোক আহত হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে সাড়ে ১০টা পর্যন্ত মাধবপুর গ্রামস্থ ছাতক-সিলেট রোডে এঘটনা ঘঠে। এ সময় ছাতক-সিলেট রোডে আড়াই ঘন্টাব্যাপী যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, খারগাঁও গ্রামের মুহিম আলীর পুত্র মোবাইল মেকানিক দিলোয়ার হোসেন ও মাধবপুর গ্রামের তোতা মিয়ার পুত্র রেজাউল হকের মধ্যে মোবাইলের ব্যাটারি ক্রয়-বিক্রয়ের বিষয় নিয়ে সোমবার মাধবপুর স্কুল সংলগ্ন দোকানে রাতে কথা কাটাকাটি হয়। এরপর থেকে দু’পক্ষে সংঘর্ষের প্রস্তুতি নিতে থাকে। এক পর্যায়ে মঙ্গলবার সকাল ৮টায় মাধবপুর প্রাথমিক বিদ্যালয় এলাকায় রোডের উপর খারগাঁও ও মাধবপুর গ্রামবাসী তুমুল সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। সংঘর্ষে দেশীয় অস্ত্র-শস্ত্র ও ইট-পাটকেল ব্যবহার করা হয়ে।

এতে আহতদের ছাতক স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স, কৈতক হাসপাতাল ও সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতদের মধ্যে দিলোয়ার হোসেন (২৫), রেজাউল হক (২৬), নূরুল ইসলাম (৩০), শুয়েব আহমদ (২০), আবদুল্লাহ (১৬), আবদুল কাইয়ূম (৩২), জাহাঙ্গীর আলম পাবেল (২৮), তৈয়ব আলী (৫০), ছালিক মিয়া (৩৫), তারেক আহমদ (২০), আবুল বশর (৩০), জসিম উদ্দিন (৩৫), আবদুর রহিম (৩২), জুয়েল আহমদ (২০) মহ দু’শতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছে। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে কয়েক রাউন্ড কাঁদানে গ্যাস ছুঁড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত এলাকায় থমথমে পরিস্তিতি বিরাজ করছিল। এ ব্যাপারে ছাতক থানার ওসি (তদন্ত) আশরাফুল ইসলাম জানান, পুলিশ ঘটনাস্থলে ৯রাউন্ড টিয়ারসেল নিপে করে সংঘর্ষ নিয়ন্ত্রনে আনতে সম হয়েছে। এখন পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

Print Friendly, PDF & Email