Home বিভাগীয় সংবাদ জগন্নাথপুরের পল্লীতে দুই গ্রামে বিদ্যুতায়ন এলাকায় আনন্দের বন্যা

জগন্নাথপুরের পল্লীতে দুই গ্রামে বিদ্যুতায়ন এলাকায় আনন্দের বন্যা

385
0

JagannathPur Map
জগন্নাথপুর সংবাদদাতা: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার হাওর বেষ্টিত প্রত্যান্ত অঞ্চল পাইলগাঁও ইউনিয়ন। এ ইউনিয়নের দুর্গম এলাকায় হাওরপাড়ে অবস্থিত অবহেলিত জনপদ আলীপুর ও মশাজান গ্রাম। যুগযুগ ধরে এ অঞ্চলের মানুষ স্বপ্ন দেখে আসছিলেন একদিন তাদের গ্রাম বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হবে। কবে তাদের স্বপ্ন বাস্তবায়িত হবে তারা জানতেন না। যদিও বর্তমান সরকারের আমলে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নানসহ স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা তাদেরকে বারবার বিদ্যুৎ প্রদানের আশ্বাস দিয়ে আসছিলেন। অবশেষে তাদের দীর্ঘদিনের কাঙ্খিত স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয়েছে আলীপুর ও মশাজান গ্রাম। তা দেখে গ্রামবাসিদের মধ্যে আনন্দের বন্যা বইছে। এ যেন এক স্বপ্ন নির্মাণ।
রোববার আনুষ্ঠানিকভাবে এ দুই গ্রামে পল্লী বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের উদ্বোধন করেন সরকারের অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান। বিদ্যুৎ সংযোগ উদ্বোধন উপলক্ষ্যে স্থানীয় আলীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ হুমায়ূন কবিরের সভাপতিত্বে ও পাইলগাঁও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল তাহিদের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন সরকারের অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সুনামগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি সিদ্দিক আহমদ, পল্লী বিদ্যুতের ডিজিএম গণেশ চন্দ্র দাস, নবীগঞ্জ উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আনোয়ার হোসেন ও জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল করিম রিজু। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন পাইলগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আপ্তাব উদ্দিন। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক আবুল হোসেন লালন, পাইলগাঁও ইউনিয়ন যুবলীগের যুগ্ম-আহবায়ক কওছর মিয়া, যুবলীগ নেতা আব্দুল বারিক, বিদ্যুৎ গ্রাহক কছরু মিয়া প্রমূখ।
সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে অর্থ ও পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী এমএ মান্নান বলেন, বিগত জোট সরকারের আমলে বিদ্যুতের উন্নয়নের নামে লুটপাট করা হয়েছে। কোন উন্নয়ন হয়নি। তাদের বিদ্যুৎ কেলেঙ্কারির কথা দেশবাসি জানেন। বর্তমান সরকারের আমলে দেশে বিদ্যুতের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। বিদ্যুতের উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের অবহেলিত জনপদে বিদ্যুৎ প্রদান করা সম্ভব হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে প্রতিটি ঘরেঘরে বিদ্যুতের আলো পৌছে দিতে সরকার আন্তরিকভাবে কাজ করে যাচ্ছে। ক্রমান্বয়ে গ্রাম বাংলার ঘরেঘরে বিদ্যুৎ পৌছে দেয়া হবে। তখন সকল অন্ধকার কেটে যাবে। আর কাউকে আলোর জন্য কষ্ট করতে হবে না।

Previous articleসুনামগঞ্জ জেলার বিডিএমএর নতুন কমিটি গঠিত
Next articleপ্রশাসনিক পদ থেকে শাবির ৩৫ শিক্ষকের পদত্যাগ