জগন্নাথপুরে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রচারণায় মুখরিত

0
60

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার মিরপুর ইউনিয়ন পরিষদের সিমানা নিয়ে মামলা জনিত সমস্যা থাকায় ১৬ বছর পর আগামী ১৪ অক্টোবর মিরপুর ইউনিয়ন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

এ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ৬ জন প্রার্থী নির্বাচনী প্রতিদ্বন্দ্বীতায় করছেন। এই ৬ জন চেয়ারম্যান প্রার্থীর মাইকিং, প্রচার-প্রচারণা ও গণসংযোগে মুখরিত ইউনিয়নের প্রতিটি এলাকা। ব্যানার পেস্টুনে ছেয়ে গেছে ইউনিয়নের সড়কসহ বিভিন্ন হাট-বাজার।

মিরপুর ইউনিয়নের মোট ভোটার সংখ্যা ১৪ হাজার ৩শ ৯১। পুরুষ ভোটার ৭ হাজার ৩শ ৬জন ও মহিলা ভোটার ৭ হাজার ৮৫জন। ১০টি ভোট কেন্দ্রে ৩৩টি বুথে ভোটাররা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মিরপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক আব্দুল কাদির (নৌকা) প্রতিক, জাতীয় পার্টি মনোনীত প্রার্থী আব্বাছ মিয়া (লাঙ্গল) প্রতিক,

স্বতন্ত্র প্রার্থী জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ মাহবুবুল হক শেরীন (আনারস) প্রতিক, যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাহাব আলী (টেলিফোন) প্রতিক, হাফিজ শওকত আলী (চশমা) প্রতিক, আতাউর রহমান (মটরসাইকেল) প্রতিক নিয়ে নির্বাচনে লড়াই করবেন।

১৪ অক্টোবর অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনকে ঘিরে চেয়ারম্যান পদে উল্লেখিত ৬ জন প্রার্থী নির্বাচনী মাঠে বিজয়ের লক্ষ্যে হাট-বাজার সহ গ্রামাঞ্চলে ভোটারদের দ্বারেদ্বারে ঘুরছেন। ইউনিয়নবাসীর সেবা করার জন্য সর্বস্থরের জনসাধারণের কাছে দোয়া ও আর্শিবাদ চেয়ে ভোটারদের সাথে কুশল-বিনিময় করছেন চেয়ারম্যান প্রার্থীরা।

বর্তমান সরকারের উন্নয়ন তুলে ধরে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুল কাদির (নৌকা) প্রতিক নিয়ে সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকা-ের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখতে জনগণের দ্বারেদ্বারে ঘুরছেন।

স্বতন্ত্র প্রার্থী জগন্নাথপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ মাহবুবুল হক শেরীন (আনারস) প্রতিক নিয়ে তার ক্লীন ইমেজকে কাজে লাগিয়ে নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার চেষ্টায় ভোটারদের সাথে কুশলাদি বিনিময় করছেন।

স্বতন্ত্র প্রার্থী যুক্তরাজ্য প্রবাসী সাহাব আলী (টেলিফোন) প্রতিক নিয়ে ভোট চাইছেন। বিদেশ থেকেও দেশে এসে ইউনিয়নবাসীর সেবা করার লক্ষ্য নিয়ে পরিষদ নির্বাচন করছেন।

নির্বাচনী এলাকার একাদিক ভোটারের সাথে আলাপ করে জানা যায়, আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আছে বলেই দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত আছে। দেশের মানুষ শান্তিতে বসবাস করছেন।

তারা আরো জানান, উন্নয়ন করবে আওয়ামী লীগ-আর ভোট চাইবে অন্যেরা। ইউনিয়নের জনগণ তা মেনে নেবে না। মিরপুর ইউনিয়নে নৌকার গণজোয়ারে স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ভীত হয়ে পড়েছে। তাদের মায়াকান্নায় জনগনের মন গলবে না। ভোটাররা এখন প্রার্থীদের অতীত কর্মকা-সহ তাদের যোগ্যতার চুলছেড়া বিশ্লেষণ করছেন।

Print Friendly, PDF & Email