জগন্নাথপুরে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

0
173

Map Jagannathpur 01
জগন্নাথপুর সংবাদাদাতা: সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনেই পরীক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করেছেন। দেরিতে প্রশ্নপত্র দেয়ায় সময়ের অভাবে সঠিক উত্তর দিতে না পারায় পরীক্ষার্থীরা বিক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন। অতিরিক্তি পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি সামাল দেয়। ঘটনাটি ঘটে, জগন্নাথপুর পৌর শহরের জগন্নাথপুর সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে। জানাগেছে, এবারের এসএসসি পরীক্ষায় সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় কেন্দ্রে মোট ১০ টি হলে ৪৫৩ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিচ্ছেন। গতকাল শুক্রবার সকাল ৯ টার দিকে বাংলা প্রথমপত্রের পরীক্ষা শুরু হয়। বিরতির পর নৈমিত্তিক পরীক্ষা শুরু হলে সময়মতো প্রতিটি হলে প্রশ্নপত্র দেয়া হলেও শুধু ৭ নং হলে দেয়া হয়নি। তখন এ হলের পরীক্ষার্থীরা চিৎকার শুরু করলে পরীক্ষা শুরু হওয়ার ১০ মিনিট পর তাদেরকে প্রশ্নপত্র দেয়া হয়। এ হলে উপজেলার পল্লবী আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়, পাটলি উচ্চবিদ্যালয় ও কেশবপুর উচ্চবিদ্যালয়ের মোট ৪২ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষা দিচ্ছিলেন। পরীক্ষা শেষে এ হলের পরীক্ষার্থীদের মধ্যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। তখন উত্তেজিত পরীক্ষার্থীরা বিক্ষোভ করতে থাকেন। বিক্ষুব্ধ পরীক্ষার্থীদের সামাল দিতে কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা পুলিশ হিমশিম খায়। পরে জগন্নাথপুর থানার এস আই মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ দল গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
ক্ষুব্দ পরীক্ষার্থীরা অভিযোগ করে বলেন, প্রতিটি হলে সময়মতো প্রশ্নপত্র দেয়া হলেও আমাদের হলে দেয়া হয়নি। এ সময় পরীক্ষার হলে দায়িত্বে থাকা শিক্ষকগণ খোশগল্পে ব্যস্ত ছিলেন। তখন আমরা চিৎকার শুরু করলে পরীক্ষা শুরু হওয়ার ১০ মিনিট পরে আমাদেরকে প্রশ্নপত্র দেয়া হয়। নির্দিষ্ট সময় শেষ হওয়ার সাথে সাথে আমাদের পেপার নিয়ে যাওয়া হয়। আমাদেরকে অতিরিক্ত সময়ও দেয়া হয়নি। সময়য়ের অভাবে আমরা সকল প্রশ্নের উত্তর দিতে পারিনি। আমাদের ভবিষ্যত নিয়ে তারা খামখেয়ালি করেছেন। পল্লবী আদর্শ উচ্চবিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক কাঞ্চন মিয়াসহ অন্যান্য স্কুলের শিক্ষক ও অভিভাবকরা ক্ষোভ প্রকাশ করে জানান, আমাদের পরীক্ষার্থীদের সাথে এমন আচরণ তাদের ভবিষ্যত অন্ধকারের দিকে ঠেলে দেয়ার শামিল।
উপজেলা কেন্দ্র সচিব মনোরঞ্জন দাস, ভেন্যু সচিব সব্বির আহমদ চৌধুরী ও হল সুপার আব্দুজ জাহের জানান, বিরতির ১০ মিনিট পর যথা সময়ে পরীক্ষা শুরু হয়েছে। প্রতিটি হলে এক সাথে প্রশ্নপত্র দেয়া হয়েছে। এক প্রশ্নের জবাবে তারা জানান, পরীক্ষার প্রথম দিন হওয়ায় না বুঝে পরীক্ষার্থীরা এমন উত্তেজনাকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ হুমায়ূন কবির জানান, এ বিষয়ে আমি খোঁজ নিয়ে জেনেছি পরীক্ষার্থীদের অভিযোগ সঠিক নয়। এদিকে জগন্নাথপুর সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় একটি সরকারি স্কুল হলেও বিগত জেএসসি ও চলমান এসএসসি পরীক্ষায় উক্ত বিদ্যালয়ের সংশ্লিষ্ট শিক্ষকদের কোন প্রকার দায়িত্বে রাখা হয়নি।

Print Friendly, PDF & Email