জগন্নাথপুরে রাণীগঞ্জ ইউনিয়ন তপশিলদারের বিরুদ্ধে ঘুষ বাণ্যিজের অভিযোগ

0
334

জগন্নাথপুর প্রতিনিধি: জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়ন তপশিলদারের বিরুদ্ধে ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এ নিয়ে এলাকায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।
অভিযোগ সূত্রে জানাগেছে, জগন্নাথপুর উপজেলার রাণীগঞ্জ ইউনিয়নের ইসলামপুর গ্রামের নজরুল ইসলামের বাড়ির সামনে থাকা ৩ শতক সরকারি জায়গা বন্দোবস্ত নিতে কথা বলেন রাণীগঞ্জ ইউনিয়ন তপশিল অফিসের সহকারি কর্মকর্তা (তপশিলদার) কৃষ্ণ কান্ত দাসের সাথে। এ সময় ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে তাদের মধ্যে বন্দোবস্ত প্রদানের চুক্তি হয়। চুক্তি অনুয়ায়ী ৫০ হাজার টাকার মধ্যে ১৫ হাজার টাকা তপশিলদারকে প্রদান করেন নজরুল ইসলাম। বাকি টাকা পরবর্তীতে প্রদানের কথা ছিল। এর মধ্যে গত ৩০ অক্টোবর উক্ত সরকারি জায়গায় নজরুল ইসলামের নির্মিত আধাপাকা ঘর উচ্ছেদ করেন জগন্নাথপুর উপজেলা সহকারি কমশিনার (ভূমি) কাজী আরিফুর রহমান। ঘরটি উচ্ছেদ করায় প্রায় ২ লক্ষ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়। উচ্ছেদ অভিযানের পর তপশিলদারের বিরুদ্ধে ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ উঠে।
এ ব্যাপারে ক্ষতিগ্রস্থ নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে গতকাল মঙ্গলবার তপশিলদার কৃষ্ণ কান্ত দাসের বিরুদ্ধে জগন্নাথপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নিকট অভিযোগ দায়ের করেন। যার অনুলিপি জগন্নাথপুর উপজেলা সহকারি কমিশনারকে (ভূমি) প্রদান করা হয়। এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে অভিযুক্ত তপশিলদার কৃষ্ণ কান্ত দাস বলেন, নজরুল ইসলামের ঘর উচ্ছেদ করায় সে ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ঘটনা সাজিয়ে অভিযোগ করেছে।
এছাড়া রাণীগঞ্জ বাজার সেক্রেটারী ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি আজমল হোসেন মিঠু বলেন, তপশিলদার কৃষ্ণ কান্ত দাসের বিরুদ্ধে অনেক ঘুষ, দুর্নীতি ও সাধারণ মানুষের সাথে অসাধচরনের অভিযোগ রয়েছে। পাইলগাঁও ইউনিয়ন আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক হাজী আব্দুল তাহিদ অভিযোগ করে জানান, আমার পিতার নামে রেকর্ডিয় জায়গা-জমির খাজনা পরিশোধ করলেও আমার দাদার নামে রেকর্ড রয়েছে বলে একই জমির দ্বিতীয় বার খাজনা আদায়ের জন্য তপশিলদার কৃষ্ণ কান্ত দাস আমাকে দীর্ঘদিন ধরে হয়রাণী করছেন।

Print Friendly, PDF & Email