জাতীয় সংলাপ চেয়ে হাসিনা-খালেদাকে নাগরিক সমাজের চিঠি

0
175

Hasina Khaleda
ঢাকা: জাতীয় সংকট নিরসনে এবং সংকটের স্থায়ী সমাধানের জন্য জাতীয় সংলাপের আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিঠি দিয়েছে নাগরিক সমাজ। সোমবার সন্ধ্যার পর সাবেক প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) এটিএম শামসুল হুদার স্বাক্ষরিত এই চিঠি দুই নেত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছে দেয়া হয়।
এছাড়া রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদকেও জাতীয় সংলাপ আয়োজনের আহ্বান জানিয়ে চিঠি দেয়া হয়।
গত ৭ ফেব্রুয়ারি ‘নাগরিক ঐক্য প্রক্রিয়া’ আয়োজিত ‘জাতীয় সংকট নিরসনে জাতীয় সংলাপ’ শীর্ষক গোলটেবিল আলোচনায় দুই দলের সঙ্গে বৈঠকের ঘোষণা দেন নাগরিক সমাজ। জাতীয় সংলাপ আয়োজনের অংশ হিসেবে তারা এ উদ্যোগ নেন।
প্রসঙ্গত, ৫ জানুয়ারির একতরফা নির্বাচনের বর্ষপূর্তি ঘিরে দেশের রাজনৈতিক সংকট চরমে উঠে। রাজনৈতিক সহিংসতা ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর গুলিতে নিহত হন প্রায় ৮০ জন।
উল্লেখ্য, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ নির্দলীয়-নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন অনুষ্ঠানের বিধান বাতিল করলে প্রধান বিরোধী দল বিএনপিসহ নিবন্ধিত ৪০টি দলের মধ্যে ২৮টি দল ২০১৪ সালের ৫ জানুয়ারি দশম সংসদ নির্বাচন বর্জন করে। মূলতঃ আওয়ামী জোটের বাইরে সেক্যুলার কিংবা ইসলামপন্থী কোনো দল এতে অংশ নেয়নি।
সহিংসতা ও খুবই স্বল্প ভোটার উপস্থিতির এই নির্বাচনে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায় আওয়ামী লীগ। অবশ্য ভোট ছাড়াই ক্ষমতাসীন জোটের ১৫৩ জন নির্বাচিত হয়েছিল। বাকি ১৪৭ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী ছিল অনেকটা প্রতীকী।
এতে বিরোধী দল হিসেবে আত্মপ্রকাশ করে বিগত আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট সরকারের অন্যতম শরিক জাতীয় পার্টি। নজির স্থাপন করে দলটি একই সঙ্গে মন্ত্রিসভায়ও অংশগ্রহণ করে। দলের চেয়ারম্যান হন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত।
ওই নির্বাচনের পর থেকেই অংশগ্রহণমূলক নির্বাচনের দাবি করে আসছে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোয়। ওই সময় ৫ জানুয়ারির নির্বাচনকে সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা বলে নতুন নির্বাচনের প্রতিশ্রুতি দিলেও সে অবস্থান থেকে সরে আসে আওয়ামী লীগ।

Print Friendly, PDF & Email