জিয়ার মাজার সরানোর নীল নকশা হচ্ছে: রিজভী

0
150

ঢাকা: বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর টার্গেট বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের মাজার। তাই লুই আই কানের মূল নকশা বাস্তবায়নের নামে মাজার সরানোর নীল নকশা করছেন তিনি। সোমবার সকালে নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ সব কথা বলেন।
রিজভী বলেন, লুই আইকানের নকশা নিয়ে সরকারের দৌঁড়ঝাঁপ প্রধানমন্ত্রীর হিংসাশ্রয়ী আচরণেরই বহিঃপ্রকাশ। সরকারের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে জিয়ার মাজার কমপ্লেক্স উচ্ছেদ করা। কিন্তু জনগণ ভোটারবিহীন সরকারের এই নীল নকশা বাস্তবায়ন করতে দেবে না।
রিজভী বলেন, প্রধানমন্ত্রী দেশকে এক অশুভ পরিণতির দিকে ঠেলে দিতে চান। তিনি রক্তপাত ছাড়া সুস্থির থাকতে পারেন না। দেশের অভ্যন্তরে বিভেদ বিভাজনেই যেন তার রাজনৈতিক কর্মসূচি। মেরুকরণের বিপদজ্জনক খেলায় গোটা জাতিকে তিনি ধ্বংসের কিনারায় পৌঁছে দিয়েছেন। তিনি বলেন, বিশেষজ্ঞরা বলছেন-লুই আই কানের মূল নকশা বাস্তবায়ন কখনও সম্ভব নয়। বিএনপি মনে করে ভোটারবিহীন সরকার যে নকশা আনার চেষ্টা করছে সেটা আসল কি না-সে ব্যপারে জনমনে যথেষ্ট সন্দেহ রয়েছে। তাই শহীদ জিয়াউর রহমানের মাজার সরানোর সকল ষড়যন্ত্র সকল শক্তি দিয়ে রুখে দেবে জনগণ। এমনকি মাজার নিয়ে ষড়যন্ত্রে সরকার নিজেদের পতনে স্বেচ্ছায় স্বাক্ষর করবে।
গুম নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর দেওয়া বক্তব্যের সমালোচনা করে বিএনপির এ নেতা বলেন, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ভোটারবিহীন সরকারের মন্ত্রী। তাই গুম খুন নিয়ে তুচ্ছ ও তামাশা করছেন। কারণ এই সরকারের ক্ষমতায় টিকে থাকার একমাত্র উপায় হচ্ছে গুম, খুন। তারা যদি জনসমর্থিত হতো তাহলে একটি সুষ্ঠু নির্বাচন করে জনগণ যাকে চায় তাকে ক্ষমতা দিতো। নাসিক নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সরকারি দল যাতে ভোটারদের ভয় দেখাতে না পারে সেটির দায়িত্ব যেমন নির্বাচন কমিশনের তেমনি নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব শাসকদল নির্বাচনী প্রচারণার শুরুতেই যাতে দখলের প্র্যাকটিস শুরু না করে সে ব্যাপারে যথাযথ উদ্যোগ নেওয়া।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাংগঠনিক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, শামা ওবায়েদ, পল্লী উন্নয়ন বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট গৌতম চক্রবর্তী, প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এ বি এম মোশাররফ হোসেন, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আউয়াল খান, দফতর সম্পাদক মো. মুনির হোসেন, বেলাল আহমেদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য আমিনুল ইসলাম প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email