Home বিভাগীয় সংবাদ জুড়ীতে শিলা মেধাবৃত্তি পরীক্ষার সনদপত্র ও সংবর্ধনা প্রদান

জুড়ীতে শিলা মেধাবৃত্তি পরীক্ষার সনদপত্র ও সংবর্ধনা প্রদান

673
0

নিউজ ডেক্স: মৌলভীবাজারের জুড়ী উপজেলা অডিটোরিয়ামে ৪ নভেম্বর শুক্রবার সকাল ১১টায় ‘স্বপ্নকুঁড়ি সমাজ কল্যাণ সংস্থা’র আওতায় ২০১৪ ও ২০১৫ খ্রি. ‘শিলা মেধাবৃত্তি পরীক্ষায়’ অংশগ্রহণ করে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণিতে বৃত্তিপ্রাপ্ত ২০১৪ সালে পঞ্চম শ্রেণির ৩৫ জন, ২০১৫ সালে পঞ্চম শ্রেণির ৫০ জন ও ২০১৫ সালে অষ্টম শ্রেণির ১৫ জন সহ মোট ১০০ জন ছাত্র/ছাত্রীদের মাঝে সনদপত্র, ক্রেস্ট, ডিকশনারী ও সংবর্ধনা দেয়া হয়। ‘স্বপ্নকুঁড়ি সমাজ কল্যাণ সংস্থা’র প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও নির্বাহী পরিচালক বিজয় রুদ্র পাল এর সভাপতিত্বে ও শাহাজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যায়ের শিক্ষার্থী প্রদীপ রবিদাস এর পরিচালনায় অনুষ্টিত পুরস্কার বিতরনী সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জুড়ী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান গুলশান আরা মিলি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জুড়ী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান কিশোর রায় চৌধুরী মনি,মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান রঞ্জিতা শর্মা, সিলেট কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রভাষক সুব্রত কৈরী, এস.এ.ও ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও সিলেট ক্যামব্রিয়ান স্কুল এন্ড কলেজের প্রিন্সিপাল অধ্যাপক শিব্বির আহমদ ওসমানী, শ্রীমঙ্গলের কালিঘাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান প্রাণেশ গোয়ালা, উত্তরণ বাংলাদেশ এর সভাপতি অনুময় বর্মা, জাগরণ যুব ফোরাম এর সভাপতি মোহন রবিদাস, দুর্বার বাংলাদেশ এর সভাপতি রাজু কুর্মী, দৈনিক প্রথম আলোর জুড়ী প্রতিনিধি কল্যাণ প্রসূণ চম্পু প্রমুখ।

উক্ত সংবর্ধনা ও আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, জুড়ী উপজেলা বিশেষ করে চা বাগানের শিক্ষার বিস্তার ও উন্নয়নের বিজয় রুদ্র পাল কর্তৃক প্রতিষ্ঠিত স্বপ্নকুঁড়ি সমাজ কল্যাণ সংস্থার ‘শিলা মেধাবৃত্তি পরীক্ষা’ বিশেষ ভূমিকা পালন করছে। তার এই মহতি উদ্যোগের সর্বাঙ্গিন সাফল্য কামনা করেন।

এছাড়াও শিলা মেধাবৃত্তি প্রকল্পের মাধ্যমে মৌলভীবাজার জেলার ৯২টি চা বাগানে প্রতি বছর জেএসসি, এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় এ+ প্রাপ্ত সকল ছাত্র/ছাত্রীকে বৃত্তি দিয়ে আসছে। ২০১১ সালে একটি স্কুল প্রতিষ্ঠা করেন ‘ছোট ধামাই আইডিয়াল একাডেমী’ এর মাধ্যমে বিনামূল্যে ও স্বপ্নমূল্যে শিক্ষা দিয়ে যাচ্ছে। ২০১৪ সালে চা বাগানের ছাত্র/ছাত্রীদের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি কোচিং এর মাধ্যমে ফ্রি কোচিং দিয়ে আসছে। চাকুরীর পাশাপাশি প্রতি সপ্তাহে ছুটির দিনে প্রতিটি বাগানে ছাত্র/ছাত্রীদের দিকনির্দেশনা মূলক 4অনুষ্ঠান করে যাচ্ছে। চা বাগানের যে সকল ছাত্র/ছাত্রী একে বারে অসহায় তাদেরকে তার ব্যক্তিগতভাবে সহযোগিতা করে যাচ্ছে এবং সকল কাজ তার ব্যক্তিগত অর্থে করে যাচ্ছে।
২০১৫ সালের ২মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পুত্র ও আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় এর কাছ থেকে ‘জয় বাংলা ইয়ূথ এ্যাওয়ার্ড’ পায়। বিজয় রুদ্র পাল সবার কাছ থেকে দোয়া/আর্শীবাদ পায় যেন সকল কাজ সফল ভাবে করতে পারে।

Previous articleগণতন্ত্র আদায়ের আন্দোলন বিচ্যুত করতে নাসিরনগরে হামলা: মির্জা ফখরুল
Next article“বর্ণাঢ্য আয়োজনে সিকৃবির একদশক উৎযাপন”