টাইগারদের স্বপ্নপূরণের টার্গেট ৩০৩

0
320

Cricket India
মেলবোর্ন: বিশ্বকাপের দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালে রোহিত শর্মার শতকে বাংলাদেশের সামনে ৩০৩ রানের জয়ের লক্ষ্য দিয়েছে ভারত। বৃহস্পতিবার মেলবোর্নে টস জিতে মহেন্দ্র সিং ধোনির বাহিনী ৬ উইকেটে করে ৩০২ রান। রোহিত ১২৬ বলে ১৪ চার ও ৩ ছক্কায় করেন ১৩৭ রান।
সেমি-ফাইনালে উঠার ম্যাচে দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান রোহিম শর্মা ও শিখর ধাওয়ান দারুণ শুরু এনে দেন। ৭৫ রানের এই জুটি ভাঙেন সাকিব আল হাসান, ১৭তম ওভারে প্রথম আক্রমণে এসে।
মুশফিকুর রহিমের হাতে স্ট্যাম্পিং হওয়ার আগে শিখর ধাওয়ান করেন ৫০ বলে তিন চারে ৩০ রান। এরপর দলীয় ৭৯ রানে ডেঞ্জারম্যান বিরাট কোহলিকে ফেরান রুবেল হোসেন। উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেওয়ার আগে কোহলি করেন ৩ রান।
সেখান থেকে রোহিতের সঙ্গে বড় জুটির আভাস দেয়া দেন আজিঙ্কা রাহানে। তবে ৩৬ রানের এই জুটি ভাঙতে রাহানেকে ফেরান তাসকিন আহমেদ। দলীয় ১১৫ রানে তার বলে রাহানে সাকিবের তালুবন্দি হওয়ার আগে করেন ৩৭ বলে ১৯ রান।
এরপর রোহিতের সঙ্গে দলের হাল ধরেন সুরেশ রায়না। শুরুতে দেখে-শুনে খেললেও সময় গড়ানোর সঙ্গে দুজনই আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠেন। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ১২২ রানের জুটি গড়ে রায়না আউট হন দলীয় ২৩৭ রানে। মাশরাফির বলে মুশফিকুরের তালুবন্দি হওয়ার আগে তিনি ৫৭ বলে ৭ চার এক ছক্কায় করেন ৬৫ রান।
তবে তখনও এক প্রান্ত আগলে রেখে শতক তুলে নেন রোহিত শর্মা। স্লগ-ওভারে বিপজ্জনক হয়ে ওঠা রোহিতকে তাসকিন আহদে সরাসরি বোল্ড করেন। এর মধ্যদিয়ে তাসকিন নিজের দ্বিতীয় শিকার তুলে নেন দলীয় ২৭৩ রানে। সাজঘরে ফেরার আগে রোহিত ১২৬ বলে ১৪ চার ৩ ছক্কায় করেন ১৩৭ রান।
এরপর দলীয় ২৯৬ রানে ভারতীয় অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি তুলে মারতে গিয়ে তাসকিনের বলে নাসিরের হাতে ধরা পড়েন। তিনি করেন ৬ রান। তবে শেষ ওভারে রুবেল হোসেন ৬ রান দিলে ভারতের সংগ্রহ দাঁড়ায় ৬ উইকেটে ৩০২ রান।
বাংলাদেশের পক্ষে ৩ উইকেট নিয়ে সেরা তাসকিন আহমেদ। তবে তিনি রান দিয়েছেন ৬৯টি। সমানসংখ্যক রান দিয়ে অধিনায়ক মাশরাফি আর রুবেল হোসেন ৫৬ রানে নিয়েছেন একটি করে উইকেট। সাকিব ৫৮ রানে পেয়েছেন বাকি উইকেটটি।
এর আগে টস হেরে বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক মাশরাফি মর্তুজা বলেন, দল নিয়ে আমি গর্বিত। প্রথমবার আমরা কোয়ার্টার ফাইনাল খেলছি। আশা করছি, আজ আমরা আমাদের সেরাটাই মাঠে ঢেলে দিব।
আর মহেন্দ্র সিং ধোনি বলেন, এটা বেশ কঠিন এবং কঠিন ম্যাচ। যারা তাদের পরিকল্পনাগুলো কাজে লাগাতে পারবে, তারাই এগিয়ে থাকবে। আশা করছি ভারতের জন্য দারুণ সুযোগ অপেক্ষা করছে।

Print Friendly, PDF & Email