তথ্য মন্ত্রণালয়ে নীতিমালা জমা: সম্প্রচার কমিশনের অধীনে অনলাইন গণমাধ্যম

0
272

Logo Gov 01
ঢাকা: গত এক মাসে অনলাইন নীতিমালা প্রণয়নের কাজে বেশ গতি এসেছে। দীর্ঘদিনের স্থবিরতা কাটিয়ে নীতিমালা প্রণয়নে গঠিত কমিটি তাদের অংশের কাজ শেষ করে তথ্য মন্ত্রণালয়ে জমা দিয়েছে। চূড়ান্ত খসড়া নীতিমালাটি এক মাসের মধ্যেই মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা। তবে অনলাইন গণমাধ্যমের জন্য আলাদা কোনো কমিশন গঠন হচ্ছে না। সম্প্রচার কমিশন গঠন হলে ওই কমিশনের আওতায় অনলাইন সংবাদমাধ্যমগুলো পরিচালিত হবে।
প্রসঙ্গত, এখনো সম্প্রচার কমিশন গঠিত হয়নি। সরকার গত বছর সম্প্রচার নীতিমালা প্রণয়ন করেছে। এর পরিপ্রেক্ষিতে ‘জাতীয় সম্প্রচার আইন’ ও ‘জাতীয় সম্প্রচার কমিশন আইন’ প্রণয়নে কাজ চলছে। আইন প্রণয়নের পর গঠন হবে সম্প্রচার কমিশন।
মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া খসড়া নীতিমালা অনুযায়ী অনলাইন গণমাধ্যম বলতে— ‘বাংলা, ইংরেজি কিংবা অন্য কোনো ভাষায় প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে ইন্টারনেট ব্যবহারের মাধ্যমে ভিডিও, অডিও, টেক্সট বা মাল্টিমিডিয়ার অন্যকোনো রূপে উপস্থাপিত তথ্য-উপাত্ত বা সম্প্রচারকারী ব্যক্তি, সংস্থা বা প্রতিষ্ঠানকে বুঝাবে।’
মন্ত্রণালয়ে বুধবার তথ্য সচিব মরতুজা আহমদের সভাপতিত্বে অনলাইন নীতিমালা সংক্রান্ত এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে ‘জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা-২০১৪’ এর সদস্যরা ছাড়াও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিতি ছিলেন।
২৪ মার্চ অনলাইন নীতিমালা তৈরির জন্য গঠিত কমিটির সভাপতি ও প্রধান তথ্য কর্মকর্তা তছির আহাম্মদ খসড়া নীতিমালা অনানুষ্ঠানিকভাবে মন্ত্রণালয়ে জমা দেন বলে জানা গেছে। বুধবারের বৈঠকে তা আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করা হয়।
বৈঠকে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহবুবুল আলমের নেতৃত্বে তিন সদস্যের নতুন আরেকটি কমিটি গঠন করা হয়েছে। এ কমিটি খসড়া নীতিমালা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে অংশীজনদের উন্মুক্ত মতামতের জন্য মন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে দেবে। কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন— প্রযুক্তি বিশেষজ্ঞ মোস্তাফা জব্বার ও অতিরিক্ত প্রধান তথ্য কর্মকর্তা জয়নাল আবেদিন।
বৈঠকে উপস্থিত একাধিক সদস্যের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, তছির আহাম্মদের নেতৃত্বে গঠিত কমিটির জমা দেওয়া অনলাইন নীতিমালার চূড়ান্ত খসড়া নিয়ে বৈঠকে তেমন কোনো পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত হয়নি।
তবে একটি বিষয় সংশোধনের আলোচনা হয়েছে। খসড়া নীতিমালায় অনলাইন গণমাধ্যমের জন্য আলাদা কমিশন গঠনের সুপারিশ করা হয়েছে। বৈঠক সূত্র জানায়, সম্প্রচার নীতিমালার জন্য যে কমিশন গঠিত হবে সেই কমিশনের অধীনেই অনলাইন গণমাধ্যমগুলো চলতে পারে বলে বৈঠকের অধিকাংশ সদস্যই মত দিয়েছেন। কিন্তু চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি।
বৈঠকে আলোচনার বিষয়ে জানতে চাইলে তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ও খসড়া নীতিমালা পরীক্ষা করে দেখার জন্য গঠিত তিন সদস্যের কমিটির সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, ‘সম্প্রচার কমিশনের অধীনেই অনলাইন গণমাধ্যম থাকতে পারে। বেশিরভাগ সদস্য এ অভিমত পোষণ করেছেন। আমরাও বিষয়টি দেখব, সেই সঙ্গে ওয়েবসাইটে দেওয়ার পর অনেকের মতামত পাব। সবকিছুই খতিয়ে দেখা হবে।’
প্রধান তথ্য কর্মকর্তা তছির আহাম্মদ বলেন, ‘আমরা মূল কমিটি হিসেবে খসড়া নীতিমালা করে দিয়েছি। এখন মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব চূড়ান্ত করা। আশা করি তাড়াতাড়ি আপনারা ভাল একটি নীতিমালা পাবেন।’
‘জাতীয় অনলাইন গণমাধ্যম নীতিমালা-২০১৪’ এর খসড়া প্রণয়নে যুক্তদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গণমাধ্যম হিসেবে অনলাইনের নিবন্ধন বাধ্যতামূলক করা হবে। তবে এর জন্য কোনো অর্থ জমা রাখতে হবে হবে না। এ ছাড়া গণমাধ্যম হিসেবে কী কী প্রকাশ করা যাবে এবং যাবে না, বিষয়গুলো সম্প্রচার নীতিমালার আলোকে করা হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email