দঃ সুনামগঞ্জের পশ্চিম বীরগাওয়ে পুকুর থেকে ফের ৫ লাখ টাকার মাছ লুট

0
137

মোঃ নাইম তালুকদার, দঃ সুনামগঞ্জের প্রতিনিধি: দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নের টাইলা গ্রামের একটি পুকুর থেকে ৫ লাখ টাকার মাছ লুট হয়েছে। সোমবার ভোর ৪টার দিকে ওই গ্রামের বদরুল ইসলামের একটি পুকুরের দুই পাহারাদারের হাত-পা বেঁধে জাল ফেলে প্রায় ৫ লাখ টাকার মাছ লুট করে নিয়ে যায় একই গ্রামের জুনাইদের নেতৃত্বে তার বাহিনীর সদস্যরা। বদরুলের আত্মীয়স্বজন পুকুরে মাছ লুটের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে বাধা দিলে জুনাইদ বাহিনীর ৪০/৫০ জন লোক রামদা, রড, ঝাঁটা ও সুলফি নিয়ে তাদের ওপর হামলা চালায়। এতে বদরুলের পক্ষের ৮ জন আহত হন।
আহতরা হলেন টাইলা গ্রামের মো. আকিক মিয়া (৪৩), আকিবুল ইসলাম (৪২), আলী হোসেন (২৫), আসিক মিয়া (৫২), একরামুল মিয়া (২৬) ও রাকিবুল মিয়া (২৬)। তাদের সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শী জানান, টাইলা গ্রামের মৃত সোনাহর উল্ল্যার ছেলে জুনাইদের নেতৃত্বে তার চাচাতো ভাই কমল উল্ল্যাহ, ছালেহ আহমদ, মাতাব মিয়াসহ ৪০/৫০ জন লোক দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ওই পুকুরে মাছ ধরতে যায়। পুকুরে মাছ ধরতে উভয় পক্ষের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও জুনাইদের লোকজন আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে রাতে পুকুরের মাছ লুট করে।
উল্লেখ্য, টাইলা গ্রামের বদরুল ইসলাম ও জুনাইদের দুটি পুকুর পাশাপাশি থাকায় পূর্ববিরোধের জেরে প্রায় আড়াই মাস আগে জুনাইদ ও তার লোকজন রাতে বদরুলের পুকুরে জাল ফেলে প্রায় ৫ লাখ টাকার মাছ লুট করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় বদরুল ইসলাম বাদী হয়ে জুনাইদকে প্রধান করে ১২ জনকে বিবাদী করে প্রথমটি দক্ষিণ সুনামগঞ্জ থানায় এবং সুনামগঞ্জ আদালতে দ্বিতীয় আরেকটি মামলা দায়ের করেন। মামলাটি পর্যালোচনা করে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক উভয় পক্ষকে ওই পুকুরগুলোতে মাছ ধরা থেকে বিরত থাকার নিষেধাজ্ঞা দেন। দক্ষিন সুনামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো. আল আমীন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে ওই পুকুর থেকে আবার মাছ লুট হয়েছে। পুলিশকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে।

Print Friendly, PDF & Email