দায় স্বীকারের পেছনে অন্য ‘উদ্দেশ্য’ থাকতে পারে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

0
67

ঢাকা: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, বাংলাদেশে ‘কিছু হলেই’ আইএস-এর নামে দায় স্বীকারের যেসব বার্তা আসছে, তার পেছনে ‘অন্য কোনো উদ্দেশ্য’ থাকতে পারে। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশে ‘সাংগঠনিকভাবে’ আইএস-এর অস্তিত্ব থাকার কোনো প্রমাণ পাননি গোয়েন্দারা। রোববার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকের পর সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা ষড়যন্ত্রের শিকার হচ্ছি। এখানে অন্য কোনো টেরোরিস্ট থাকতে পারে। তদন্ত করছি, শেষ হলে স্পষ্ট করে প্রকাশ করব। কে কার সঙ্গে জড়িত। খুব শিগগিরই জানাব।

একটা কিছু হলেই তাৎক্ষণিকভাবে আইএস বিবৃতি দিচ্ছ। প্রপাগান্ডা হতে পারে, উদ্দেশ্য থাকতে পারে। আমরা তদন্ত করছি। যারাই হরকাতুল জিহাদ, তারাই হুজি তারাই জেএমবি, তারাই আনসারুল্লাহ, শিবির সবই একসূত্রে গাঁথা।
আশুরা উপলক্ষে তাজিয়া মিছিলের প্রস্তুতির মধ্যে শুক্রবার পুরান ঢাকার হোসাইনী দালান ইমামবাড়ায় বোমা হামলার দায় মধ্যপ্রাচের উগ্র গোষ্ঠী আইএস ‘স্বীকার করেছে’ বলে একটি পর্যবেক্ষক সংস্থা খবর দেওয়ার পর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর এই বক্তব্য এল।  এর আগে গত ২৮ সেপ্টেম্বর ঢাকায় ইতালীয় নাগরিক চেজারে তাভেল্লা এবং ৩ অক্টোবর জাপানি নাগরিক কুনিও হোশি। খুন হওয়ার পরও আইএস ‘দায় স্বীকার’ করেছে বলে খবর দিয়েছিল ‘সাইট ইন্টিলিজেন্স গ্রুপ’।

তাভেল্লার খুনীরা চিহ্নিত হয়েছে কী না জানতে চাইলে স্থায়ী কমিটির সভাপতি টিপু মুনশি বলেন, তারা বলেছে প্রকৃত খুনীরা চিহ্নিত। দ্রুতই এ ব্যাপারে তারা জানাবে।

তবে রংপুরে জাপানি নাগরিক কুনিও হোশি হত্যা রহস্যের কিনারা করতে ‘আরও সময় লাগবে’ বলে টিপু মুনশি জানান। বিদেশি নাগরিক হত্যা ও হোসাইনী দালানে বোমা হামলার ঘটনা ‘একসূত্রে গাঁথা’ বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

Print Friendly, PDF & Email