দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ শেষ করেছেন খালেদা জিয়া

0
235

Khaleda

ঢাকা: উত্তরা আমির কমপ্লেক্সের পেছনে খাবার বিতরণের মধ্য দিয়ে আজ রোববার দ্বিতীয় দিনের মতো খাবার বিতরণ শেষ করলেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এর আগে সকালে গুলশান ২ এর ডিসিসি মার্কেটের সামনে থেকে সকাল সাড়ে ১১ টায় তিনি খাবার বিতরণ শুরু করেন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন যুবদল, স্বেচ্ছাসেবকদল ও ছাত্রদলের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।

এর আগে বেগম খালেদা জিয়ার সেখানে পৌঁছানোর আগেই মঞ্চটি ভেঙে দেয় পুলিশ। পুলিশ নেতাকর্মীদের বলে খালেদা জিয়া আসার আগেই আপনারা খাবার বিতরণ শেষ করেন। একপর্যায়ে পুলিশ খাবার বিতরণের মঞ্চটি ভেঙে দেয়। এরই মাঝে খালেদা জিয়া উক্ত স্থানে এসে হাজির হন এবং খাবার বিতরণ শুরু করেন।

রাজধানীর গুলশান ২ এর ডিসিসি মার্কেটের সামনে থেকে শুরু করে মহাখালী কমিউনিটি সেন্টার, শাহীনবাগ, এফডিসি, জাতীয় প্রেসক্লাব সিআর দত্ত রোড, গাবতলী খালেক এন্টার প্রাইজ, শাহা আলী মাজার, মিরপুর ১১ পল্লবী, শেওড়াপাড়া, উত্তরা আমির কমপ্লেক্সের পেছনে খাবার বিতরণের মধ্য দিয়ে তিনি দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করেছেন।  এর আগে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া জাতীয় প্রেস ক্লাবে অনুষ্ঠিত ছাত্রদলের কর্মসূচিতে যোগ দিয়েছেন। পরে তিনি ঢাকা শহরের বিভিন্ন স্থানে আবারো দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করেন।

জাতীয় প্রেস ক্লাবে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৩৪তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে ছাত্রদলের উদ্যোগে আলোকচিত্র প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। ওই প্রদর্শনীতে আজ দেড়টার দিকে যোগ দেন খালেদা জিয়া। পরে তিনি গাবতলীর উদ্দেশে রওনা দেন। সেখানে দুস্থদের মাঝে শাড়ি, লুঙ্গি ও খাবার বিতরণ করেন সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী। গাবতলীর এস এ খালেক এন্টারপ্রাইজ বাস কাউন্টারের সামনে খাবার বিতরণের সময় হুড়োহুড়ির ঘটনা ঘটে।
খালেদা জিয়া আজ বিকেল ৩টার দিকে যান মিরপুর শাহআলীর মাজারে। সেখানেও তিনি দুস্থদের মাঝে খাদ্য, শাড়ি ও লুঙ্গী বিতরণ করেন।

এছাড়া গতকাল শনিবার বিএনপি’র প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৪তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে দোয়া ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার বাদ মাগরিব এ দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়। দোয়া ও মিলাদ পরিচালনা করেন মাওলানা হোসেইন আহমেদ বেলালী।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, বিএনপি’র ভাইস চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল (অব.) আলতাফ হোসেন চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এনাম আহমেদ চৌধুরী, সাবিহ উদ্দিন আহমেদ, একান্ত সচিব এ বি এম আব্দুস সাত্তার, বিশেষ সহকারি মাহাবুব আলামিন ডিউ, প্রেস উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদারসহ কার্যালয়ে দায়িত্বরত কর্মকর্তা ও কর্মচারীবৃন্দ।
বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৪তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পূর্ব ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী ধানমন্ডির সুগন্ধা কমিউনিটি সেন্টারে পুলিশি বাধার কারণে দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করতে পারেননি বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া।

শনিবার দুপুর ১টার দিকে সুগন্ধা কমিউনিটি সেন্টারে স্থানীয় বিএনপির পক্ষ থেকে গরিব ও দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণের আয়োজন করেছিল। দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া উপস্থিত থেকে এই খাবার বিতরণ করার কথা ছিল। কিন্তু পুলিশের বাধায় ওইখানে আর খাবার বিতরণ করতে পারেনি। পরে পাশের মেডিনোভার সামনের রাস্তায় খালেদা জিয়া দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করেন।

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল-বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৪তম শাহাদত বার্ষিকী উপলক্ষে বৃহস্পতিবার থেকে ১৪ দিনের কর্মসূচি শুরু হয়। এর আগে ৩০ মে সকাল ৬টায় নয়াপল্টনস্থ বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলীয় পতাকা অর্ধনমিত ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়। একইভাবে সারাদেশে দলীয় কার্যালয়গুলোতে শাহাদতবার্ষিকীর কর্মসূচি পালন করা হয়।

ওই দিন সকাল ১১টায় জিয়াউর রহমানের কবরে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। জাতীয়তাবাদী ওলামা দলের উদ্যোগে এ সময় সেখানে কোরআনখানী ও মিলাদ মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। এ ছাড়া ডক্টরস এ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (ড্যাব) উদ্যোগে সেখানে স্বেচ্ছায় রক্তদান কর্মসূচি পালিত হয়। ঢাকা মহানগর বিএনপির উদ্যোগে খালেদা জিয়া মহানগরীর বিভিন্ন স্থানে দুস্থদের মাঝে খাবার বিতরণ করছেন।

Print Friendly, PDF & Email