দেশে আইনশৃঙ্খলা বলতে কিছুই নেই: রিজভী

0
334

ঢাকা: বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, আজ শুধু নারী সমাজ নয় অবৈধ সরকারের দু:শাসনে সারাদেশের মানুষ উদ্বেগ ও উৎকন্ঠায় দিনাতিপাত করছে। কোথাও কারো কোন নিরাপত্তা নেই, দেশে আইন শৃঙ্খলা বলতে এখন কিছুই নেই। দেশটাই যেন এখন বধ্যভূমি আর অবরুদ্ধ কারাগারে পরিণত হয়েছে। শুক্রবার বেলা সোয়া ১১টায় দলের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।
তিনি বলেন, সম্প্রতি ঘটে যাওয়া কয়েকটি ঘটনা পর্যালোচনা করলে দেখা যায় শিশু কিশোর ধর্ষণ ও নারীদের হামলার ঘটনা যে হারে বেড়েছে তা রীতিমতো আঁতকে ওঠার মতো। নারী ও শিশুদের নিরাপত্তা নিয়ে এখন সারাদেশে অভিভাবকরা চিন্তিত হয়ে পড়ছে।
তিনি আরো বলেন, বিভিন্নস্থানে শাসকদলের ক্যাডারদের উৎপাতে ছেলেমেয়েরা স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিয়েছে। চাঁপাইনবাবগঞ্জের স্কুল ছাত্রী কণিকা ঘোষ, রাজধানীর উইলস লিটল ফ্লাওয়ার স্কুল কলেজের ছাত্রী সুরাইয়া আক্তার রিশা প্রাণ হারিয়েছে বখাটেদের হামলায়। প্রাণ দিতে হয়েছে মাদারীপুরের নিতু মন্ডলকে। সিলেটের কলেজ ছাত্রী খাদিজা ছাত্রলীগ নেতা বদরুলের নৃশংস হামলার শিকার হয়ে রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
বিএনপির এই নেতা বলেন, এসব ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে আবার মিরপুরে দুই যমজ কলেজ ছাত্রীকে প্রকাশ্যে পিটিয়ে পঙ্গু করে দিয়েছে শাসকদলের অঙ্গ সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক লীগের নেতারা। মুন্সিগঞ্জের সিরাজদিখানে নিজের ঘরে দুর্বৃত্তদের ধারালো অস্ত্রের কোপে আহত দশম শ্রেণীর এক ছাত্রী ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।
ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, ঝিনাইদহে এক স্কুল ছাত্রীকে ছুরিকাঘাট করেছে আর এক সন্ত্রাসী। প্রেমের প্রস্তাবে সাড়া না দেয়ায় গাজীপুরে ঘরে ঢুকে এক ছাত্রীকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে এক সন্ত্রাসী। রাজধানীর দক্ষিণখানে গত রোববার বাসায় ঢুকে অস্ত্র ঠেকিয়ে স্বজনদের সামনেই এক কিশোরীকে ধর্ষণ করেছে স্থানীয় এক আওয়ামী সন্ত্রাসী।
রিজভী বলেন, গত সোমবার ঢাকার লালবাগে বাসায় ঢুকে এক নারীকে ধর্ষণ করেছে তিন সন্ত্রাসী। একই দিনে ধামরাইয়ে ষষ্ঠ শ্রেণীর এক ছাত্রীকে ধর্ষণ করেছে এক আওয়ামী লীগ নেতা। দিনাজপুরের পার্বতীপুরে ৫ বছরের এক শিশুকে ধর্ষণ করেছে এক পাষন্ড। ধর্ষিতা শিশু এখন ঢাকা মেডিকেলে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে। এমনই পৈশাচিক ও লৌহমর্ষক ঘটনা ঘটছে অহরহ। উদ্বেগজনক হারে বাড়ছে শিশু ও নির্যাতনের ঘটনা। সবখানেই ঘটছে এ ধরণের ঘটনা।
তিনি বলেন, আমাদের প্রধানমন্ত্রীও একজন নারী। তিনি কারণে অকারণে অকাতরে কথার ধারাবর্ষন করে যান। বিশেষভাবে নিজ দেশের বিরোধী দলগুলোকে কষে গালমন্দ করতে সারা দুনিয়ায় তার জুড়ি মেলা ভার। দেশে এতসব ঘটনা ও পদে পদে নারী লাঞ্ছনা, ধর্ষণ, ধর্ষণের পর হত্যা ও শাসকদলের অঙ্গ সংগঠনগুলোর পৈশাচিকতায় প্রধানমন্ত্রী নিশ্চুপ কেন?
তিনি বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির পক্ষ থেকে নারী সমাজসহ সকল স্থরের মানুষকে সকল পৈশাচিকতার বিরুদ্ধে রুখে দাড়ানোর আহ্বান জানান।
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মাহাবুব উদ্দিন খোকন, তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক আজীজুল বারী হেলাল, সহ দফতর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু ও যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা গিয়াস উদ্দিন মামুন প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email