দেশে আইনের শাসন বলতে কিছু নেই: ড. এমাজউদ্দীন

0
234

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি প্রফেসর ড. এমাজউদ্দীন আহমেদ বলেছেন, দেশে আইনের শাসন বলতে কিছু নেই। জনগণ এখন এক অদ্ভুত সরকারের শাসনামলে কঠিন জীবন-যাপন করছে। হাজার হাজার নেতাকর্মীরা মামলার বোঝা মাথায় নিয়ে কারাগারে মানবেতর জীবন-যাপন করছে। আর সরকার বলছে দেশ উন্নতির শিখরে পৌঁছে গেছে। দেশে উন্নতি হয়েছে বর্তমান সরকারের এমপি-মন্ত্রীদের। বর্তমান সংসদেও প্রতিটি সংসদ সদস্যকে ২০ কোটি টাকা বরাদ্দ দিয়ে লুটপাটের নতুন পদ্ধতি চালু করেছে। এখনো সময় আছে নিজেদের অবস্থা অনুধাবন করুন। আয়নায় নিজেদের চেহারা দেখে এসব কর্মকাণ্ড থেকে বেরিয়ে অতিদ্রুত মধ্যবর্তী নির্বাচন দিয়ে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার করুন।

বুধবার সন্ধ্যায় নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয় সংলগ্ন গোল্ডেন প্লেট চাইনীজ রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী কর্মজীবী দলের উদ্যোগে ‘বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট জাতীয় নেতাদের মুক্তি’ শীর্ষক আলোচনা সভা ও ইফতার মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। সংগঠনের সভাপতি হাজী লিটনের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক আলতাফ হোসেন সরদারের সঞ্চালনায় প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা খন্দকার মাহবুব হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা এড. আহমেদ আজম খান, সাবেক মন্ত্রী গৌতম চক্রবর্তী, বিএনপির সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকার, সহ-স্বেচ্ছা বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশাররফ হোসেন, এনডিপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মোঃ মঞ্জুর হোসেন ঈসা, সাবেক সংসদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ, শ্রমিক দলের যুগ্ম সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান, শ্রমিক নেতা মোশাররফ হোসেন মিলন, কুমিল্লা বিএনপি নেতা হাজী সেলিম, জিনাফ’র সভাপতি লায়ন মিয়া মোঃ আনোয়ার, প্রবাসী দলের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সোহরাব হোসেন, সংগঠনের নেতা তাইজুদ্দিন ইসলাম অপু, ৫৬নং ওয়ার্ড বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক রাইসুল ইসলাম চন্দন প্রমুখ। প্রধান আলোচকের বক্তব্যে খন্দকার মাহবুব বলেন, খালেদা জিয়াকে কারাগারের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। তিনি কারো সাথে কখনো আপোস করেননি। বর্তমান ভোটারবিহীন সরকারের সাথেও আপোস করবে না। ঈদের পর পেশাজীবীদের সাথে নিয়ে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। যে আন্দোলনের মধ্য দিয়ে বর্তমান সরকারের পতন নিশ্চিত হবে।

Print Friendly, PDF & Email