দেশে আজ মানবাধিকার বলতে কিছু নেই: মির্জা ফখরুল

0
98

ঢাকা: বাংলাদেশে আজ মানবাধিকার বলতে কিছুই নেই বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মির্জা ফখরুল বলেন, আমাদের দেশে একটা মানবাধিকার কমিশন আছে, জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। যেটার বয়স প্রায় দশ বছর হয়েছে। এই দশ বছরে তারা একটি মাত্র রাজনৈতিক মামলা নিয়ে কাজ করেছে। আপনার জানেন বাংলাদেশে এখন প্রতি মূহুর্তে মানবাধিকার লঙ্ঘন হচ্ছে।

মঙ্গলবার সকালে নয়াপল্টন বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন। ১০ ডিসেম্বর বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে পূর্বঘোষিত বিএনপির শোভাযাত্রা পুলিশ করতে না দেওয়ায় সংবাদ সম্মেলনে করেন মির্জা ফখরুল।
এদিকে সকাল থেকে বিএনপি অফিসের সামনে পুলিশের নিরাপত্তা বাড়ানো হয়। বিপুল সংখ্যক পুলিশের সদস্যদের পাশাপাশি গোয়েন্দা সংস্থার লোকজন উপস্থিত ছিল। পুলিশের পক্ষ থেকে বিএনপির কার্যালয় থেকে নেতাকর্মীদের বের হতে নিষেধ করতে দেখা গেছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, জাতিসংঘ ঘোষিত মানবাধিকার দিবস উপলক্ষে আমাদের কার্যালয়ের সামনে থেকে একটা র‍্যালি হওয়ার কথা ছিল। সেভাবে প্রস্তুতি নিয়ে ছিলাম। কিন্তু সকালে পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, নেতাকর্মীরা কার্যালয় থেকে নিচে নামলে আমরা ব্যবস্থা নেবো। বিএনপি এই মুহূর্তে সংঘাতে যেতে চায় না।

বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী দাবি করেন, আমরা পুলিশকে জানিয়েছি। তারপরও মানবাধিকার দিবসের মতো দিনে তারা র‍্যালির মতো শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি করতে দিচ্ছে না।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমাদের সরকারের আমলে সংখ্যালঘুদের কোনো নির্যাতন করা হয়নি। তিনি বলেন, ভারতের সংসদে বলা হয়েছে বিএনপি সরকারের আমলে বাংলাদেশে সংখ্যালুঘুদের ওপর নির্যাতন করা হয়েছে। আমার এর তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি। আমরা জোর গলায় বলতে পারি, বিএনপির আমলে এখানে সংখ্যালঘুদের স্বার্থ রক্ষা করা হয়েছে। সংখ্যালঘুর ওপর আওয়ামী লীগের আমলে যতটা নির্যাতন হয়েছে, তা আর কখনো হয়নি।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির রুহুল কবির রিজভী, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, এমরান সালেহ প্রিন্স, মানবাধিকার বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আসাদুজ্জামান প্রমুখ উপস্হিত ছিলেন।
মতিঝিল বিভাগের উপপুলিশ কমিশনার এনামুল হক সাংবাদিকদের জানান, আজকে সরকারি অফিস আদালত খোলা। ঢাকা শহরে অনেক যানজট। এর মধ্যে র‍্যালি করলে যানবাহন চলাচলে সমস্যা হবে। যেহেতু বিএনপির র‍্যালি করার অনুমতি নেই তাই করতে দেওয়া হবে না। যদি কেউ করতে চায় তাহলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Print Friendly, PDF & Email