দেশে প্রতিনিয়ত হত্যা-খুন-গুম ও ধর্ষণ চলছে: চরমোনাই পীর

0
129

Rezaul Karim
ঢাকা: ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের আমির মুফতি সৈয়দ মোহাম্মদ রেজাউল করীম চরমোনাই পীর বলেছেন, চলমান রাজনৈতিক উত্তপ্ত পরিস্থিতির কারণে মানুষের ব্যবসা-বাণিজ্য, শিল্প কল-কারখানা ধ্বংসের পথে। তিনি বলেন, সরকারদলীয় লোকদের দখল-নৈরাজ্য, চাঁদাবাজি-টেন্ডারবাজি এবং সকল ক্ষেত্রে আধিপত্য বিস্তার দেখে মনে হয় এ দেশ শুধু যারা আওয়ামী লীগ করে তাদেরই, অন্য কারো জন্য নয়।
বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে চরমোনাই পীর বলেন, দেশে প্রতিনিয়ত হত্যা-খুন-গুম ও ধর্ষণ চলছে। মানুষের ব্যবসা-বাণিজ্য, শিল্প কল-কারখানা প্রায় ধ্বংসের পথে। ১৬ লাখ পোশাক শ্রমিক বেকার হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে বলে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে।
তিনি বলেন, বাইরের রাষ্ট্র থেকে কোনো বিনিয়োগ দেশে আসছে না। নিত্যপণ্যের আকাশচুম্বি দামে জনজীবন অতিষ্ঠ। এতকিছুর পরেও আওয়ামী সরকার বলছে দেশের মানুষ নাকি শান্তিতে আছে! আসলে এটা পাগলের প্রলাপ ছাড়া কিছুই নয়।
মুফতি রেজাউল করীম বলেন, যে সরকার গণমানুষের প্রয়োজন বুঝতে পারে না এবং তাদের নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ, তাদের ক্ষমতায় থাকার কোনো অধিকার নেই। সরকারের জুলুম-নির্যাতন ও শোষণ থেকে দেশের মানুষ মুক্তি চায়।
জনমনে শান্তি ও স্বস্তি ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে রাজনৈতিক সংকট সমাধানে উদ্যোগ গ্রহণের ফের দাবি জানান তিনি।
চরমোনাই পীর বলেন, দেশে চলছে রাজনৈতিক সংকট। এই সংকট রাজনৈতিকভাবেই সমাধান করতে হবে। অন্যভাবে মোকাবেলার চেষ্টা করার কারণেই দেশে মহাবিপর্যয় দেখা দিয়েছে।
তিনি বলেন, উন্নয়ন-উৎপাদন ও অর্থনীতি থমকে দাঁড়িয়েছে। হুমকিতে পড়েছে জাতীয় শিক্ষা ও চিকিৎসা ব্যবস্থা। রাজনৈতিক সংকট জনজীবনকে এতোটাই জিম্মি ও অসহায় করে তুলেছে যে, দেশের সাধারণ খেটে খাওয়া মানুষ অর্ধাহারে ও অনাহারে জীবন যাপন করছে।
মুফতি রেজাউল করীম বলেন, প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীর পরিচয় ভুলে গিয়ে দলীয় ভূমিকা পালন করছে। ক্ষমতাসীনরা ক্ষমতাকে পাকাপোক্ত ও স্থায়ী করণের লক্ষ্যে প্রশাসনযন্ত্রকে ক্ষমতার হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে। এভাবে চললে অতি দ্রুতই দেশ ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত হবে।

Print Friendly, PDF & Email