ধর্মীয় উগ্রবাদকে এ দেশের মানুষ কখনো গ্রহণ করেনি

0
328

ঢাকা মহানগর পুলিশ (ডিএমপি) কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, সহিংস উগ্রবাদ দমনে রাজনৈতিক ও সামাজিক অঙ্গীকার প্রয়োজন। রাজনৈতিক অঙ্গীকারের কারণে আমরা দ্রুত জঙ্গিবাদের বিস্তার প্রতিরোধে সক্ষম হয়েছি। ডান-বাম বা ধর্মীয় কোনো ধরণের উগ্রবাদই এ দেশের মানুষ অতীতেও গ্রহণ করেনি, ভবিষ্যতে করবে না বলে আমাদের বিশ্বাস।

আজ শনিবার রাজধানীর বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএফডিসি) মিলনায়তনে ‘সহিংস উগ্রবাদ বিরোধী’ বিতর্ক প্রতিযোগিতার কোয়ার্টার ফাইনাল রাউন্ডের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডিএমপি কমিশনার এসব কথা বলেন।

ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি আয়োজিত এই প্রতিযোগিতায় সহযোগিতা করছে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সম্প্রীতি প্রকল্প। এই বিতর্ক অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ঐক্যবদ্ধ অঙ্গীকারের কারণে আজ উগ্রবাদের শেকড় উপড়ে ফেলা সম্ভব হয়েছে। অনেক উন্নত দেশও উন্নত প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে জঙ্গিবাদ প্রতিরোধে আমাদের মতো এত দ্রুত সাফল্য অর্জন করতে পারেনি।

তিনি বলেন, এর আগে দেশে বাংলা ভাই-এর উত্থান ঘটলেও প্রথমে রাজনৈতিক অঙ্গীকার না থাকার কারণে তখন তা নির্মূল করা সম্ভব হয়নি। কিন্তু পরে রাজনৈতিক অঙ্গীকারের কারণেই বাংলা ভাইকে দমন করা সম্ভব হয়। এদিকে রাজধানীর গুলশানে হলি আর্টিজানের ঘটনার পর গ্রামে গ্রামে পাড়া-মহল্লায় সহিংস উগ্রবাদের বিরুদ্ধে ঐক্যমত তৈরি হয়েছে। আর এটা সম্ভব হয়েছে সরকারের পদক্ষেপ ও সামাজিক সচেতনতার কারণে।

প্রতিযোগিতায় নরসিংদীর জামেয়া কাসেমিয়া কামিল মাদরাসাকে পরাজিত করে লালমাটিয়া মহিলা কলেজে বিজয়ী হয়।

প্রতিযোগিতা শেষে অংশগ্রহণকারিদের মাঝে ক্রেস্ট ও সনদপত্র বিতরণ করা হয়। বিচারক ছিলেন প্রাক্তন অধ্যাপক আবু মোহাম্মদ রইস, সাংবাদিক মাঈনুল আলম, মোহসিন উল হাকিম, পারভেজ রেজা ও জাহিদ রহমান।

Print Friendly, PDF & Email