নিখোঁজের একদিন পর সাংবাদিক ইসলাম উদ্দিন গ্রেফতার

0
160
স্টাফ রিপোর্টারঃ নিখোঁজের একদিন পর সাংবাদিক ইসলাম উদ্দিনকে গ্রেফতার দেখিয়েছে পুলিশ। আজ শুক্রবার সকালে তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে পুলিশ হেফাজতে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হয়। তারপর বিকেলে আদালতের মাধ্যমে তাকে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।
জানা যায়, প্রতিদিনের ন্যায় গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭.৩০ঘটিকার দিকে নগরীর লামাপাড়াস্থ বাসা থেকে তার কর্মস্থল দৈনিক সিলেটের ডাক পত্রিকা অফিসে যাওয়ার জন্যে বের হন সাংবাদিক মোঃ ইসলাম উদ্দিন। ৮.০০ টায় পত্রিকা অফিসে পৌছার কথা থাকলেও ৯.০০টা পর্যন্ত না পৌছায় দৈনিক সিলেটের ডাকের বার্তা সম্পাদক সমরেন্দ্র বিশ্বাস সেলফোনে তাকে কল করেন। কিন্তু মোবাইল ফোন বন্ধ পেয়ে বাসার নাম্বারে  কল করলে তার মা জানান তিনি পত্রিকা অফিসে চলে গেছেন।
এমন খবরে পত্রিকা অফিস ও সাংবাদিক ইসলাম উদ্দিনের পরিবারের মাঝে উদ্বেগ উৎকন্ঠা বিরাজ করে। অফিস ও পত্রিকা কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে এসএমপির সকল থানায় যোগাযোগ করেও দৈনিক সিলেটের ডাকের স্টাফ রিপোর্টার তথ্য অনুসন্ধানী সাংবাদিক মোঃ ইসলাম উদ্দিনকে খোঁেজ পাওয়া সম্ভব হয়নি। নিখোঁেজর একদিন পর আজ বৃহস্পতিবার ভোর ৭.০০ঘটিকায় তার বাবা আবারও থানায় যোগাযোগ করলে কর্তব্যরত পুলিশ কর্মকর্তা বলেন সাংবাদিক মোঃ ইসলাম উদ্দিনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি এখন ওসমানী হাসপাতালে আছেন।
এমন সংবাদ দৈনিক সিলেটের ডাক এবং মিডিয়ায় পৌছলে সাংবাদিকরা ভিড় জমান হাসপাতালে। কিন্তু হাসপাতালের বিশেষ ইউনিটে চিকিৎসাধীন সাংবাদিক মোঃ ইসলাম উদ্দিনের পাশে তার পিতা-মাতা ব্যাতিত কোন সংবাদকর্মীকে যেতে দেয়নি পুলিশ। এ নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে পুলিশের বাকবিতন্ডার ঘটনা ঘটে। দুপুরে আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে প্রেরণ করা হয় গুরুতর আহত সাংবাদিক মোঃ ইসলাম উদ্দিনকে। এ নিয়ে সিলেটের মিডিয়া অঙ্গনে বিরুপ প্রতিক্রিয়া ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।
উল্লেখ্য- সাংবাদিক ইসলাম উদ্দিন বেশকিছু দিন থেকে পুলিশ প্রশাসন ও ক্ষমতাসীন দলের ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগকে নিয়ে বেশ কয়েকটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন তৈরী করেন । যা সিলেটের দৈনিকে গুরুত্ব সহকারে ছাপা হয়। এমন সংবাদের প্রেক্ষিতেই তাঁকে গ্রেফতার ও নির্যাতন করা হতে পারে বলে মনে করেন সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ। অবিলম্বে সাংবাদিক ইসলাম উদ্দিনের নিঃশর্ত মুক্তির দাবী জানান তারা।
Print Friendly, PDF & Email