Home ঢাকা প্রার্থিতা প্রত্যাহারের জন্য হুমকি-ধামকি দেয়া হচ্ছে: ইশরাক

প্রার্থিতা প্রত্যাহারের জন্য হুমকি-ধামকি দেয়া হচ্ছে: ইশরাক

293
0

ঢাকা : আসন্ন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন (ডিএসসিসি) নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রার্থিতা প্রত্যাহারের জন্য হুমকি-ধামকি দেয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন দলটির মেয়র প্রার্থী ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেন। তিনি বলেন, আমাদের অনেক কাউন্সিলর প্রার্থীর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের জন্য হুমকি দেওয়া হচ্ছে। সরকারদলীয় কাউন্সিলরদের যোগসাজশে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কতিপয় অসাধু সদস্যের মাধ্যমে প্রার্থিতা প্রত্যাহারে নানাভাবে চাপ দেওয়া হচ্ছে।

শনিবার দুপুরে রাজধানীর গোপীবাগে ডিএসসিসি নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ে লিখিত অভিযোগ জানাতে এসে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ইশরাক এ কথা বলেন। তার লিখিত অভিযোগ গ্রহণ করেন রিটার্নিং অফিসার ও নির্বাচন কমিশনের (ইসি) যুগ্ম-সচিব আবদুল বাতেন।

অভিযোগ জমা দিয়ে ইশরাক হোসেন রিটার্নিং অফিসার আবদুল বাতেনকে বলেন, আমাদের কাউন্সিলর প্রার্থীরা হুমকি, গ্রেফতার এবং নানাভাবে হয়রানির শিকার হচ্ছেন। এজন্য আপনার কাছে আমরা লিখিত অভিযোগ জানাতে এসেছি। অভিযোগ শুনে রিটার্নিং অফিসার আবদুল বাতেন বলেন, আপনাদের অভিযোগ আমরা গ্রহণ করলাম এবং এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেব।

পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে ইশরাক হোসেন বলেন, আমরা আমাদের অভিযোগ লিখিত আকারে জানিয়ে গেলাম, রিটার্নিং কর্মকর্তা আমাদের আশ্বস্ত করেছেন, তিনি এ বিষয়ে যথাযথ ব্যবস্থা নেবেন। এর আগে মনোনয়ন যাচাই-বাছাই শেষে রিটার্নিং অফিসারের কার্যালয়ের সামনে থেকে আমাদের কাউন্সিলর প্রার্থীকে গ্রেফতার করা হয়। অথচ আমরা প্রার্থীরা যখন কাগজপত্র জমা দেই, তখন প্রতিটি মামলার কথা উল্লেখ করি। তাহলে মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করার পর ওই প্রার্থী যখন বের হন তখন তাকে অনুসরণ করে গ্রেফতার করা হলো কেন?

ইশরাক হোসেন নিজে কোনো হুমকি পাচ্ছেন কি-না? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে বিএনপির এ মেয়রপ্রার্থী বলেন, আমি কোনো হুমকি পাইনি, তবে আমি হুমকিতে ভয় পাওয়ার মানুষ নই। তিনি বলেন, এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে এর আগে আমাদের দলীয় যেসব প্রার্থী নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন তারাও বিভিন্ন সময় এমন অভিযোগ জানিয়েছেন। অভিযোগের স্তুপ জমে গেছে, তবু নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে কোনো ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। এটা অতীতের ঘটনা। কিন্তু এখন নির্বাচন কমিশনের সামনে সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে। আসন্ন নির্বাচনে এ বিষয়ে তাদের সংশোধন হওয়ার সুযোগ এটি।

ইসি ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, ঢাকার দুই সিটি নির্বাচনের প্রার্থিতা প্রত্যাহার ৯ জানুয়ারি, প্রতীক বরাদ্দ ১০ জানুয়ারি। ভোটগ্রহণ হবে ৩০ জানুয়ারি।

Previous articleঅনেক চেষ্টা করেও আওয়ামী লীগকে ধ্বংস করা যায়নি: প্রধানমন্ত্রী
Next articleমুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে ধারণ করে এগিয়ে যাচ্ছে দেশ: শিল্পমন্ত্রী