ফতুল্লায় ফিল্মি স্টাইলে বাস থামিয়ে ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা

0
120

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লায় একটি যাত্রীবাহী বাস থামিয়ে এক ব্যবসায়ীকে গুলি করে হত্যা করেছে অজ্ঞাত পরিচয় দুর্বৃত্তরা। ওই সময়ে দুর্বৃত্তরা বেশ কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। সোমবার  রাত সাড়ে ৯টায় ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের ফতুল্লার মাহমুদপুর এলাকাতে এ ঘটনা ঘটে।

নিহতের নাম নুরুল ইসলাম (৪০)। সে ফতুল্লা রেল স্টেশন এলাকার হানিফ হাজীর ছেলে। তার বাড়ি ফতুল্লার রেল স্টেশন এলাকাতে। ঢাকার পরীবাগে মোতালিব প্লাজায় তার ‘পপুলার ইলেকট্রনিক্স’ নামের মোবাইল ব্যবসার দোকান রয়েছে। মূলত তিনি চীন হতে মোবাইল আমদানী করতো।

প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাত দিয়ে নিহতের স্বজনেরা জানান, নুরুল ইসলাম ঢাকা থেকে উৎসব পরিবহনের একটি বাসে (ঢাকা মেট্রো ব ১১-১৭৩৭) করে নারায়ণগঞ্জ ফিরছিলেন। বাসটি ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোডের ফতুল্লার মাহমুদপুর এলাকাতে আসলে কয়েকজন অস্ত্রধারী বাসটি গতিরোধ করে। পরে দুর্বৃত্তরা বাসে উঠে নুরুল ইসলাম মারধর করে বুকে পিস্তল ঠেকিয়ে গুলি করে পালিয়ে যায়।

নিহতের স্ত্রী সাবিনা ইয়াসমিনের বরাত দিয়ে স্বজন ও জেলা যুবলীগের সহ সভাপতি জাকিরুল আলম হেলাল জানান, নুরুল ইসলাম নারায়ণগঞ্জ ব্যবসার টাকা নিয়ে ফিরছিলেন। ওই টাকা নেওয়ার জন্যই হয়তো তাকে খুন করা হয়েছে। কারণ তার কোন শত্রু নাই। কাছের কেউ হয়তো টাকার বিষয়টি জানতে পেরে এ ঘটনাটি ঘটিয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সাইদ হোসেন বসবাস করেন ফতুল্লার দাপা ইদ্রাকপুর এলাকাতে। তিনি ওই বাসেই ছিলেন। বলেন, রাত সাড়ে ৮টায় বাসটি ঢাকা থেকে ছেড়ে আসে। বাসে অন্তত ৬০জনের মত যাত্রী ছিলেন। ১৫ জন দুর্বৃত্ত হঠাৎ করে বাসটি আটক করে গুলি করে দ্রুত পালিয়ে যায়।

ঘটনাস্থলে যাওয়া ফতুল্লা মডেল থানার এস আই আরাফাত জাহান ও জয়নাল জানান, দুর্বৃত্তরা উৎসব পরিবহনের একটি বাস আটক করেছিল। পরে ওই বাস থেকে এক ব্যক্তি নিচে লাফিয়ে পড়ে। তখন দুর্বৃত্তরা কয়েকটি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। বাস থেকে লাফিয়ে পড়া ওই ব্যক্তিকে পরে নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। নারায়ণগঞ্জ ৩০০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালের জরুরি বিভাগরে চিকিৎসক ডা. হাম্মদ আলী জানান, গুলিতে আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে নুরুল ইসলামের মৃত্যু ঘটেছে।

Print Friendly, PDF & Email