বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তর্ক-বিতর্ক চাই না: আশরাফ

0
206

ঢাকা: জনপ্রশাসন মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেছেন, ইলেকট্রনিক, প্রিন্ট মিডিয়ার সঙ্গে আলোচনা করে ১৫ আগস্ট সর্বজনীনভাবে পালনের জন্য আহ্বান জানিয়েছি। কারণ বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে এই বাংলাদেশে আমরা কোনো তর্ক-বিতর্ক দেখতে চাই না। আমরা চাই, যে যার যোগ্য আসন, সেই আসনই তারা পাক। বঙ্গবন্ধুর একমাত্র প্রাপ্য এই বাংলাদেশ। মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় সৈয়দ আশরাফ এসব কথা বলেন।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে উদ্দেশ্য করে সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম বলেন, সাবেক প্রধানমন্ত্রী, ওনার জন্মদিন ১৫ আগস্ট না। তারপরেও তিনি ১৫ আগস্ট জন্মদিন পালন করেন, কেক কাটেন। আমি কয়েক দিন আগে বলেছি, আমরা জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে চাই। স্বাধীনতার দীর্ঘ সময় পার করেছি। আমরা চাই সবাই মিলে সর্বজনীনভাবে জাতির পিতার মৃত্যুদিবস পালন করি। দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে আমাদের। বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা কায়েম করতে হবে আমাদের। এই বিভাজন আমরা চাই না।

সৈয়দ আশরাফ বলেন, “খালেদা জিয়াকে প্রস্তাব করেছিলাম। আপনি দয়া করে ১৫ আগস্ট আপনার জন্মদিন পালন না করে ১৬ তারিখে করেন বা ১৭ তারিখে করেন। কিন্তু আপনি ইচ্ছাকৃতভাবে এই ১৫ তারিখ বেছে নিয়েছেন, আপনার জন্মদিন হিসেবে। এইভাবে কোনো দিন দেশ গড়া চলতে পারে না।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, আমি সাঈদ খোকনকে জিজ্ঞাসা করেছিলাম এর আগে ঢাকা সিটি করপোরেশনের কেউ কী জাতীয় শোক দিবস পালন করেছে। সে বলে যে না। এবার প্রথম। আমি মেয়রকে ধন্যবাদ জানাই। একটি নতুন সূচনা করার জন্য ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনকে ধন্যবাদ। আমি আশা করব, সারা বাংলাদেশের প্রতিটি সিটি করপোরেশন, মিউনিসিপ্যালটি এবং সব নির্বাচিত সংস্থা জাতির পিতার জন্মদিন ও মৃত্যুদিনের তারা যেন অনুষ্ঠান করেন। আমি আশা করব, আমাদের এই আহ্বানের পর বাংলাদেশের সব নির্বাচিত প্রতিষ্ঠান এগিয়ে আসবেন। ভবিষ্যতে জন্মদিনে উৎসব করার জন্য, জন্মদিনে শোক পালন করবেন।

ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন ঢাকা উত্তরের মেয়র আনিসুল হক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ, আবদুর রাজ্জাক, আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম, কামরুল ইসলাম, আবদুস সোবহান গোলাপ, সাংসদ মন্নুজান সুফিয়ান, শেখ ফজলে নূর তাপস প্রমুখ। এ ছাড়া আলোচনা সভায় সৈয়দ শামসুল হক বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে তার লেখা একটি কবিতা পড়ে শোনান।

Print Friendly, PDF & Email