বর্তমান কমিশনের অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হতে পারে না

0
137

ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর সিটি করপোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন এ নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। তারপরও আমরা গণতন্ত্রকে বিশ্বাস করি বলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছি। বুধবার সকাল ১০টার দিকে ছাত্রদল আয়োজিত রাজধানীর চন্দ্রিমা উদ্যানে সাবেক প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের মাজারে শ্রদ্ধাঞ্জলি জানানো শেষে তিনি একথা বলেন।
মির্জা ফখরুল বলেন, দেশের গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার জন্য, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করার জন্য ছাত্রদল সংগ্রাম করবে বলে অঙ্গীকার করেছে। তারা দেশের জনতার ঐক্য গড়ে তুলবেন। ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করবেন। দেশনায়ক তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনবেন।
ঢাকার উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, বর্তমান নির্বাচন কমিশনের অধীনে ও তত্ত্বাবোধক সরকারের অধীনে ছাড়া কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু ও অবাধ হতে পারে না। জনগণ যে রায় দেয় সে রায় এখানে প্রতিফলিত হয় না। তারপরেও আমরা গণতন্ত্রকে বিশ্বাস করি বলে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করি।

ইভিএমের মাধ্যমে ভোট গ্রহণের পদ্ধতি ত্রুটিযুক্ত অভিযোগ করে ইভিএমকে প্রত্যাহারের দাবি করে তিনি বলেন, ইভিএমের মাধ্যমে জনগণের রায় প্রতিফলিত হবে না, তাই আমরা বিশ্বাস করি এ নির্বাচন সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা খুব কম। এ সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি।
নতুন বছরের জনগণ ঐক্যবদ্ধ হবে বলে আশা ব্যক্ত করে তিনি বলেন, নতুন বছরে মানুষ গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করবে, লড়াই করবে। অসত্যকে পরাজিত করবে, অসুন্দরকে পরাজিত করে সত্য ও সুন্দরকে প্রতিষ্ঠা করবে। দেশনেত্রীকে মুক্ত করে গণতন্ত্রকে মুক্ত করবে।
এই সময় উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, যুগ্ম-মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, যুবদলের সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, ছাত্রদলের সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন, সাধারণ সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামল, সিনিয়র সহ সভাপতি কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ, সাংগঠনিক সম্পাদক সাইফ মাহমুদ জুয়েলসহ অসংখ্য নেতাকর্মী।

Print Friendly, PDF & Email