বাংলাদেশ সত্যিকারার্থে একটি ফ্যাসিস্ট রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে: মির্জা ফখরুল

0
158

দেশে ক্রসফায়ার, বিচারবহির্ভূত হত্যা ও নির্যাতনের প্রেক্ষাপট তুলে ধরে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমরা বিশ্বাস করি আল্লাহ এসবের বিচার করবেন। গত রাতে গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিএনপির নির্যাতিত নিপীড়িত নেতাকর্মী ও তাদের স্বজনদের সাথে ঈদ-পূর্ব শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। এ সময় বিএনপি চেয়ারপারসনের একান্ত সচিব এ বি এম আব্দুস সাত্তারসহ অন্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে বিএনপির নির্যাতিত নিপীড়িত নেতাকর্মী ও তাদের স্বজনদের ম:েধ্য আর্থিক অনুদান প্রদান করেন মির্জা ফখরুল। অনুদান প্রদানের সময় তাদের শারীরিক খোঁজ-খবরও নেন তিনি।
বাংলাদেশ আজকে সত্যিকারার্থে একটি ফ্যাসিস্ট রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে মন্তব্য করে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, জনগণের কোনো স্বাধীনতা নেই, সব মৌলিক অধিকার হরণ করা হয়েছে, বেঁচে থাকার কোনো নিরাপত্তা নেই। প্রতিবাদ করা যাবে না। আর তারাই নির্ধারণ করবে কে বেঁচে থাকবে, আর কে বেঁচে থাকবে না? সুতরাং মানুষের নিরাপত্তা তো দূরে থাক তাদের স্বাভাবিক মৃত্যুরও গ্যারান্টি নেই এখন।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, দেশে নির্যাতনের মাত্রা এমন পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছেছে, এখন সম্ভবত এদের কারো কাছে জবাবদিহিও করতে হয় না! ক্রসফায়ার, বিচারবহির্ভূত হত্যা, নিখোঁজ করে দেয়া, পুলিশ কাস্টডিতে নির্যাতন, প্রকাশ্যে গুলি করা এবং হাঁটুতে গুলি করে পঙ্গু করে দেয়া! আমরা এমন এক দেশে বাস করছি, যেখানে শিশুর আর্তনাদ এবং কান্নাও কারো কানে গিয়ে পৌঁছায় না। ভয়াবহ একটা পৈশাচিক কারাগারে বাস করছি আমরা।
মির্জা ফখরুল ইসলাম বলেন, আমাদের সন্তানদের তুলে নিয়ে গেছে, নিখোঁজ হয়ে গেছে। অথচ যে রাষ্ট্রের দায়িত্ব নাগরিকদের রক্ষা করা, সেই রাষ্ট্রের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তাদের তুলে নিয়ে গেছে। এখন তারা কেউ কোনো কথা বলে না।

Print Friendly, PDF & Email