বাবলু, শিপলু, বিপলু বনকলাপাড়ার তিন নক্ষত্রের নাম

0
523

দিপু বিন হাসিব : বাসার পাশের একটু জমিকে মাঠ বানিয়ে ফুটবল খেলত ৭-৮ জন তরুন। শুরুর দিকে খালি পায়ে মিনিবারে ফুটবল খেলা হত। ধীরে ধীরে বুট পরে খেলা শুরু হলো। ছোট ছোট পাসে খেলা হত নান্দনিক ফুটবল। একই পরিবারে ৩ ভাই একই সাথে সেই মাঠে ফুটবল খেলত। ৩ ভাই নিয়মিত এক সাথে খেলার ফলে ৩ জনের মধ্যে দারুণ বোঝাপড়া গড়ে উঠলো। ধীরে ধীরে বিভিন্ন জায়গায় মিনিবার ফুটবল টুর্নামেন্টে ৩ ভাই এক সাথে খেলতে আরম্ভ করলো। নিজেদের ক্রীড়া নৈপূন্য দিয়ে মানুষের মন জয় করে নিলো ৩ ভাই- বাবলু, শিপলু, এবং বিপলু। বৃহত্তর সিলেট জুড়ে ৩ ভাই বললেই সবাই চিনত বাবলু, শিপলু এবং বিপলুর কথাই বলা হচ্ছে। ৩ ভাই একসময় বড়ো বারের ফুটবল টুর্নামেন্টেও নিয়মিত খেলতে আরম্ভ করে। সেখানেও সাফল্য লাভ করে, বিভিন্ন ধরণের ড্রিবলিং, পাস, কিক দেখিয়ে মানুষের বাড়তি আনন্দ জোগায় ৩ ভাই। সেই সময়ে খবর আসলো অনূর্ধ্ব-১৬ ফুটবল দল গঠনের জন্য ফুটবলার বাছাই হবে। সেই বাছাইয়ে অংশ নিল ৩ ভাইয়ের মধ্যে কনিষ্ঠ বিপলু। সিলেট অঞ্চলের বাছাইয়ে উত্তীর্ণ হয়ে, মৌলভিবাজারে এবং সর্বশেষ ঢাকায় চূড়ান্ত বাছাইয়ে টিকে জায়গা করে নিল দেশের ঐতিহ্যবাহী ক্লাব মোহামেডানে। মোহামেডানের হয়ে অনূর্ধ্ব-১৬ ফুটবলে নিজের অসাধারণ ফুটবল নৈপূণ্যের স্বাক্ষর রাখলো বিপলু। মোহামেডান শিরোপা জিতল। বয়স ভিত্তিক ফুটবলে বিপলু দেশ জুড়েই এক পরিচিত নাম হয়ে উঠলো ধীরে ধীরে। এরপর সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ ফুটবল টুর্নামেন্ট খেলতে নেপাল যাওয়া জাতীয় অনূর্ধ্ব-১৯ দলে নির্বাচিত হলো বিপলু। দলের মধ্যমাঠের মূল কারিগর হয়ে উঠলো বিপলু। সেই সময় অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ম্যানেজার সাইফুল বারি টিটুর পরিকল্পনায় বিপলু ছিলেন দলের প্রাণ ভোমরা। অ্যাটাকিং মিডফিল্ডার হিসাবে বিপলুও দলের জন্য নিজেকে উজাড় করে দিলেন, দলও সাফল্য পেতে থাকলো।

কিন্তু, সেমি-ফাইনালের মত গুরুত্বপূর্ণ খেলার আগে ভাইরাস জ্বরে আক্রান্ত হয়ে সেমি-ফাইনাল ম্যাচে মাঠে নামতে পারলো না। বাংলাদেশ বিদায় নিল সাফ অনূর্ধ্ব-১৯ টুর্নামেন্ট থেকে। মোহামেডান ক্লাবের হয়ে বিপলু খেলে যাচ্ছে এখনো। গত বছর ফেডারেশন কাপে মুক্তিযোদ্ধার বিপক্ষে গোল দিয়েই গত মৌসুমে নিজের গোলের খাতা শুরু করে বিপলু। শক্তিশালি চট্টগাম আবাহনীকেও ৫ গোল দেয় মোহামেডান এ বছরের ফেডারেশন কাপে। বিপলু সেই ম্যাচে এক গোল করেছে এবং ২টি গোলে অ্যাসিস্ট করেছে। দীর্ঘদিন ধরে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবে খেলে এখন একরকম ঘরের ছেলেই হয়ে উঠেছে বিপলু। সেই মোহামেডানের হয়ে এবার সিলেটের সন্তান বিপলু ঘরের মাঠ সিলেট জেলা স্টেডিয়ামে জেবি বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ফুটবলে মাঠে নামছে আজ। সন্ধ্যা ৭.৩০ মিনিটে শুরু হবে ম্যাচটি। বিপলু আশা ব্যক্ত করেছেন সিলেটের মানুষ সিলেটের সন্তান হিসাবে তাকে উৎসাহ দিতে মাঠে আসবেন খেলা উপভোগ করতে। তাঁর আজকের এই অবস্থানে আসার জন্য অসংখ্য মানুষের দুয়া এবং আশীর্বাদ ছিল সেসব মানুষের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানান। তাঁর পরিবারের সকলে সব ফুটবল অনুরাগী দর্শকের কাছে বিপলুর জন্য দুয়া কামনা করেছেন। বিপলু স্বপ্ন দেখেন একদিন লাল সবুজ জার্সি পরে বাংলাদেশের হয়ে আন্তর্জাতিক ফুটবলেও দেশের জন্য সাফল্য নিয়ে আসবেন। উল্লেক্ষ্য, বিপলু সুবিদ বাজার বন কলাপাড়া নিবাসী জনাব রেহান উল্লাহর কনিষ্ঠ পুত্র।

Print Friendly, PDF & Email