Home আইন বিচার বিভাগকে জিম্মি করে রাখা হয়েছে: প্রধান বিচারপতি

বিচার বিভাগকে জিম্মি করে রাখা হয়েছে: প্রধান বিচারপতি

365
0

ঢাকা: অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরির শৃঙ্খলা ও আচরণ-সংক্রান্ত বিধিমালার গেজেট প্রকাশে রাষ্ট্রপক্ষের বারবার সময় নেওয়ার ঘটনায় আবারও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা বলেছেন, ‘রাষ্ট্রের কাছে ব্যক্তি কিছু নয়, প্রতিষ্ঠানই বড়। বিচার বিভাগকে জিম্মি করে রাখা হয়েছে।’ বিচার বিভাগ পৃথক্করণ-সংক্রান্ত মাসদার হোসেন মামলায় অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরি-সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশের বিষয়ে গতকাল মঙ্গলবার আপিল বিভাগের আট সদস্যের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চে প্রধান বিচারপতি এ কথা বলেন। এর আগে সকালে রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম গেজেট প্রকাশের জন্য আবারও সময় চেয়ে আবেদন করেন।
এ পর্যায়ে অ্যাটর্নি জেনারেলের উদ্দেশে প্রধান বিচারপতি বলেন, বিচারকদের শৃঙ্খলা-সংক্রান্ত বিধিমালার গেজেট প্রকাশ নিয়ে বারবার সময় নেওয়া হচ্ছে। বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে কতবার সময় নেওয়া হবে? দেশ কি আটকে আছে? দেশ কি চলছে না? রাষ্ট্রের তো একটি ‘ফেয়ার প্লে’র বিষয় রয়েছে। রাষ্ট্রের কাছে ব্যক্তি কিছু নয়, প্রতিষ্ঠানই বড়। বিচার বিভাগকে জিম্মি করে রাখা হয়েছে। আর সময় দেওয়া যাবে না। এ সময় অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম গেজেট প্রকাশে আবারও দুই সপ্তাহের সময় চান। কিন্তু প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে আপিল বিভাগের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ সময় দিতে অপারগতা প্রকাশ করেন।
এ পর্যায়ে অ্যাটর্নি জেনারেল আদালতকে বলেন, ‘মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, রুলস প্রণয়ন করবেন রাষ্ট্রপতি। শিগগিরই বিধিমালা জারি করা হবে। দুই সপ্তাহ চাইছি। আশা করি, এ সময়ের মধ্যে অচলাবস্থা নিরসন হবে।’ পরে আদালত দুই সপ্তাহ সময় মঞ্জুর করেন। এর আগে গত ১৩ ও ২৭ ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপক্ষকে গেজেট প্রকাশে দুই সপ্তাহ করে সময় দিয়েছিলেন আপিল বিভাগ। অধস্তন আদালতের বিচারকদের চাকরিবিধি-সংক্রান্ত গেজেট প্রকাশ নিয়ে প্রায় এক বছর ধরে সরকার ও বিচার বিভাগের মধ্যে টানাপড়েন চলছে। বিভিন্ন সময় আপিল বিভাগ এ বিষয়ে ক্ষোভও প্রকাশ করেছেন। এর মধ্যে কয়েকবার সময় দেওয়ার পরও সরকার গেজেট প্রকাশ না করায় গত বছরের ৮ ডিসেম্বর দুই সচিবকে তলব করেন আপিল বিভাগ। এ প্রেক্ষাপটে রাষ্ট্রপতি ‘গেজেট প্রকাশের প্রয়োজন নেই’ বলে একটি সিদ্ধান্তও দেন। কিন্তু আপিল বিভাগ বলছেন, রাষ্ট্রপতিকে ভুল বোঝানো হয়েছে। গেজেট প্রকাশ করতেই হবে।

Previous articleবিরূপ আচরণের জন্য নেদারল্যান্ডকে মূল্য দিতে হবে: এরদোগান
Next articleইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ