বিনা ভোটের নির্বাচন আর হতে দেয়া হবে না: ড. মোশাররফ

0
165

নিজস্ব প্রতিবেদক: বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন আগামী নির্বাচন প্রসঙ্গে বলেছেন, ২০১৪ সালের নির্বাচনের মত আরেকবার বিনা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পায়তারা করেছে। তাদের স্পষ্ট করে জানিয়ে দিতে চাই, গত নির্বাচনের মত আর নির্বাচন দেশে হবে না, হতে দেওয়া হবে না।
নির্বাচন হবে সকল দলের অংশ গ্রহণে। শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব বলেন।
বিএনপির ৩৯ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ‘বীর উত্তম শহীদ জিয়াউর রহমান’ শীর্ষক এ আলোচনার আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী নাগরিক দল।
খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ষোড়শ সংশোধনীর রায় বাতিলকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীনরা ‘বাড়াবাড়ি’ করছে।
আওয়ামী লীগকে ভব্যিষতে এর জন্য খেসারত দিতে হবে। ভুল করলে আল্লাহ মাফ করে। কিন্তু রাজনীতিতে ভূল করলে খেসারত দিতে হয়। অতীতে তা প্রমাণিত হয়েছে। কারণ রাজনীতিতে মাফ বলে কিছু নেই।
তিনি বলেন, ষোড়শ সংশোধনীর বাতিলের পর বিচার বিভাগ এবং নির্বাহী বিভাগের মধ্যে মুখোমুখি অবস্থান তৈরি করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীও এ সংশোধনীর ওপর বক্তব্য দিয়ে বিচার বিভাগ ও নির্বাহী বিভাগকে মুখোমুখি করে দিয়েছে যা দেশের জন্য মঙ্গল হতে পারে না। দেশের জন্য অশনি সঙ্কেত।
তিনি বলেন, বিচার বিভাগকে চাপ দেওয়া চেষ্টা গর্হিত অপরাধ। কারণ বিচার বিভাগকে সামনে রেখে দেশ অগ্রসর হয়। তা না হলে জনগণের সর্বশেষ ভরসার স্থল, সেটাও সরকারের নিয়ন্ত্রণে চলে যায়।
তিনি আরো বলেন, কেউ কেউ প্রধান বিচারপতির পদত্যাগ চাচ্ছেন। অথচ যদি প্রধান বিচারপতিকে পদত্যাগ করতে হয়, তাহলে বিচার বিভাগ ধ্বংস হয়ে যাবে। দেশে ধ্বংস হয়ে যাবে।
বিএনপির এই নেতা বলেন, আজ যারা প্রধান বিচারপতির পদত্যাগ চান, সময় বেশি নেই। জনগণই তাদের পদত্যাগ চাইবে। যারা সংবিধান ও সুপ্রীম কোর্টের রায়ের প্রতি অশ্রদ্ধা দেখাচ্ছেন, একদিন জনতার আদালতে তাদের বিচার হবে।
সংগঠনের সভাপতি মো. ওমর ফারুকের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য দেন- বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. সুকোমল বড়ুয়া প্রমুখ।

Print Friendly, PDF & Email