ভাবমূর্তি ক্ষুণ্নের শঙ্কায় বিএনপি

0
211

ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বিদেশে বসে ষড়যন্ত্র করছেন— সরকারদলীয় পক্ষ থেকে এমন বক্তব্যের মধ্যেই বাংলাদেশে দুই বিদেশী নাগরিক খুন হন। আর এসব হত্যাকাণ্ড ও ষড়যন্ত্রের অভিযোগের মধ্যে বিরোধী দলের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার দুরভিসন্ধি থাকতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বিএনপি। শনিবার বিকেলে দলের সহ দফতর সম্পাদক আব্দুল লতিফ জনি স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ আশঙ্কার কথা জানান বিএনপির মুখপাত্র আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন।

তিনি বলেন, জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের কেন্দ্রীয় সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেলের ছোট ভাই চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ শাখা ছাত্রদলের সাবেক সভাপতি রাশেদুন নবী বিপ্লবকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এর মধ্য দিয়েই আমরা আশঙ্কা করেছিলাম হাবিব উন নবী খান সোহেলকেও হয়তো হয়রানি করা হতে পারে।

রিপন বলেন, দেশে দু’জন বিদেশীর মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ডের কুলকিনারা হওয়ার দাবি আমাদের দল করে আসছে। এর রহস্য-বৃত্তান্ত ন্যায়ানুগ তদন্ত হওয়া উচিৎ এবং এ ধরনের জঘন্য পৈশাচিক ঘটনায় যারা জড়িত-তাদেরও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি আমরা দাবি করে আসছি। কিন্তু রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে হয়রানি করার অসৎ টার্গেটে যেনো তদন্ত পরিচালিত না হয়। দেশে দু’জন বিদেশী হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে যে ইমেজ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তার প্রতিকার জরুরি বলে আমাদের দল দাবি করে।

তিনি বলেন, কিন্তু প্রকৃত দোষীদের আইনের আওতায় না এনে যদি কোনো ‘কল্পকাহিনী’ প্রচার করে রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে আঘাত করার কৌশল হিসেবে বিদেশী খুনে কোনো কানেকশনের আজগুবি তথ্য দেওয়া হয় তা হবে দুঃখজনক। একই সাথে সত্য উদঘাটনের পরিবর্তে সত্যকে ধামাচাপা দেওয়ার শামিল হবে। এরই আভাস হিসেবে আমরা দুয়েকটি পত্রিকায় কিছু রূপকথাজাতীয় প্রতিবেদনও লক্ষ্য করছি।

বিএনপির মুখপাত্র বলেন, দেশের গণতন্ত্রহীন পরিস্থিতির এই ক্রান্তিকালে বিরোধীদলের আস্থা ও ভরসার অন্যতম স্থল হচ্ছে গণমাধ্যম। গণমাধ্যম প্রকৃত সত্য উন্মোচনে সাহসী ভূমিকা রাখবে বলে আমাদের বিশ্বাস।

Print Friendly, PDF & Email