ভালবাসার মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দেয়া অমানবিক: মির্জা ফখরুল

0
236

স্টাফ রিপোর্টার: প্রবীণ সাংবাদিক শফিক রেহমানের ন্যায়বিচার পাওয়া নিশ্চিত করতে সরকারের প্রতি দাবি জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। একইসঙ্গে শফিক রেহমানের নিঃশর্ত মুক্তি দাবি জানিয়েছেন তিনি। আজ দুপুরে রাজধানী ইস্কাটনের বাসায় গিয়ে শফিক রেহমানের স্ত্রী তালেয়া রহমানকে সান্ত¡না জানানো শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের তিনি এ দাবি জানান। মির্জা আলমগীর বলেন, আমরা সবসময় যেটা চাইব, ন্যায়বিচার ও ইনসাফ।  শফিক রেহমান এদেশের একজন প্রতিথযশা, প্রবীণতম সাংবাদিক। তিনি শুধু বাংলাদেশ নয়, আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত একজন বড় মাপের সাংবাদিক। তিনি বিবিসিতে দীর্ঘকাল কাজ করেছেন। তিনি একজন লেখক, তার লেখা মানুষকে অনুপ্রাণিত করে। যায়যায়দিনের মাধ্যমে বাংলাদেশে ১৪ই ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক ভালোবাসা দিবসের প্রচারে শফিক রেহমানের ভূমিকাও তুলে ধরেন বিএনপির মহাসচিব। বলেন, তিনি ভালোবাসার জন্য কাজ করতেন। ভালোবাসা দিবসটি তারই বাংলাদেশে নিয়ে আসা। যে মানুষটি মানুষে মানুষে ভালোবাসার জন্য কাজ করেছেন, তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ দেয়া কতটা অমানবিক হতে পারে, আমরা তা ভেবেও পাই না।

প্রবীণ একজন একজন সাংবাদিককে রিমান্ডে নেয়ার সমালোচনা করে মির্জা আলমগীর বলেন, ভিন্নমতের কারণেই শফিক রেহমানকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এই সরকারের ভিন্নমত যারাই পোষণ করছেন, তাদেরকে কোন না কোন মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে, অন্তরীণ করা হচ্ছে। শফিক রেহমান একজন স্পষ্টবাদী মানুষ। অন্যায়ের বিরুদ্ধে কথা বলেন। তিনি সবসময়ে ন্যায়ের পক্ষে সোচ্চার ছিলেন। সেটাই মনে হয় তার একমাত্র অপরাধ। এসময় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুল আউয়াল মিন্টু, অর্থবিষয়ক সম্পাদক আবদুস সালাম, আইনজীবী ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে বিএনপির সিলেট বিভাগীয় সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক নিখোঁজ এম ইলিয়াস আলীর বাসায় গিয়ে পরিবারের সদস্যদের সাক্ষাৎ করেছেন মির্জা আলমগীর। ইলিয়াস আলী গুম হওয়ার চতুর্থ বার্ষিকী উপলক্ষে রোববার বিকাল সাড়ে ৩টায় ইলিয়াস আলীর বনানীর বাসায় যান তিনি। এ সময় ইলিয়াস আলীর স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা ও পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথা বলেন এবং তাদের প্রতি সমবেদনা জানান বিএনপির মহাসচিব। ইলিয়াস আলীর নিখোঁজ হওয়া প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তার স্ত্রী তাহসিনা রুশদীর লুনা বলেন, এখনও আমি আমার স্বামীকে ফিরে পাওয়ার আশা করি। যত দিন নিঃশ্বাস থাকবে আমি তাকে ফিরে পাওয়ার আশা থাকবো। তিনি বলেন, আমি সরকারের প্রতি জোর দাবি জানাচ্ছিÑ তিনি যেন আমার স্বামীকে ফিরিয়ে দেন। তিনি বলেন, আমার  মেয়ে প্রতি মুহূর্তে তার বাবার কথা বলে। কোথায় তার বাবা? উত্তরে আমি কোন কথা বলতে পারি না। উল্লেখ্য, ২০১২ সালের ১৭ই এপ্রিল রাজধানীর মহাখালী থেকে গাড়িচালক আনসার আলীসহ অপহৃত হন ইলিয়াস আলী।

Print Friendly, PDF & Email