মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার নিয়ে জাতিসংঘের বক্তব্য ডিস্টার্বিং: বাংলাদেশ

0
149

ঢাকা: মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার নিয়ে জাতিসংঘের দেয়া বিবৃতি প্রত্যাখ্যান করেছে বাংলাদেশ। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনারের দেয়া বিবৃতি খন্ডন করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেয়া রায় সম্পর্কে ভুল ধারণার ভিত্তিতে ওই বিবৃতি দেয়া হয়েছে বলে মনে করে বাংলাদেশ। বিবৃতিতে যে উপসংহার টানা হয়েছে তাতে বাংলাদেশ ‘হাইলি ডির্স্টাবড’ বলে উল্লেখ করা হয়েছে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

এতে বলা হয়েছে, সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী এবং আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদকে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধকালীন সময়ের মানবতাবিরোধী অপরাধ এবং গণহত্যার জন্য সাজা দেয়া হয়েছে। বর্তমান রাজনৈতিক অবস্থান নয়, বরং ১৯৭১ সালের অপরাধের জন্যই তাদের বিচার হয়েছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ।

মঙ্গলবার বাংলাদেশের মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচার নিয়ে একটি বিবৃতি দিয়েছিলেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক হাই কমিশনারের মুখপাত্র রাভিনা শামদাসানি। এতে বলা হয়েছিল, বিচারে সুষ্ঠুতা নিয়ে সন্দেহ দেখা দেয়ায় দীর্ঘদিন ধরে আমরা সতর্ক করছি যে, বাংলাদেশ সরকারের উচিত হবে না মৃত্যুদন্ড কার্যকর করা। বিভিন্ন সময় একই রকম উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতিসংঘের মানবাধিকার বিষয়ক বিশেষজ্ঞরা। তারা ফাঁসি বন্ধ রাখতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। কারণ, সুষ্ঠু বিচারের আন্তর্জাতিক মানদ- বজায় রাখা হয়নি। ইন্টারন্যাশনাল কোভেন্যান্ট অন সিভিল পলিটিক্যাল রাইটসের শর্তও অনুযায়ীও ওই বিচার করা হয় নি। এই চুক্তিতে স্বাক্ষর করা একটি দেশ বাংলাদেশ। যেকোন পরিস্থিতিতে, এমনকি সবচেয়ে গুরুতর আন্তর্জাতিক অপরাধের ক্ষেত্রেও মৃত্যুদ-ের বিরোধী জাতিসংঘ।

Print Friendly, PDF & Email