মালয়েশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

0
155

000
ঢাকা: তিন দিনের মালয়েশিয়া সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার দুপুর ১টা ৪০ মিনিটে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের একটি ফ্লাইটে প্রধানমন্ত্রী ঢাকার শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করেন। এ সময় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ এবং কয়েকজন সিনিয়র মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান। এর আগে স্থানীয় সময় ১১টা ৫৫ মিনিটে কুয়ালালামপুর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ঢাকার উদ্দেশে রওনা হন তিনি। প্রধানমন্ত্রীকে বিমানবন্দরে বিদায় জানান মালয়েশিয়ার মানবসম্পদবিষয়ক উপমন্ত্রী হাজি ইসমাইল হাজি আবদুল মুত্তালিব।
সফরকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাকের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে অংশ নেন। বুধবার তাদের উপস্থিতিতেই জনশক্তি রফতানি, ভিসা প্রক্রিয়া শিথিল এবং পর্যটন ও সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে সহযোগিতার বিষয়ে একটি চুক্তি, দুটি সমঝোতা স্মারক ও একটি প্রটোকল স্বাক্ষরিত হয়। দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে দুই দেশের বাণিজ্য ঘাটতি কমিয়ে আনার বিষয়েও ঐকমত্য হয়।
মালয়েশিয়ায় বৈধভাবে প্রায় তিন লাখসহ ছয় লাখের মতো বাংলাদেশি বিভিন্ন পেশায় কাজ করছেন। বুধবার স্বাক্ষরিত প্রটোকলের আওতায় দেশটির সারাওয়াক প্রদেশে ১২ হাজার বাংলাদেশির কাজের সুযোগ তৈরি হবে, যা পর্যায়ক্রমে বেড়ে ৬০ হাজারে উন্নীত হবে। যারা অবৈধভাবে সেখানে রয়েছেন, তাদের বিষয়টি ‘দেখার’ প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী।
দুই প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক শেষে বাংলাদেশের পররাষ্ট্র সচিব শহীদুল হক সাংবাদিকদের বলেন, মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, বাংলাদেশের সঙ্গে আমাদের অত্যন্ত ভালো সম্পর্ক, এটাকে আমরা গ্রেটার হাইটস-এ নিয়ে যেতে চাই। আমাদের দুই দেশের মধ্যে কোনো ধরনের ইরিটেশন নেই। এটা গ্রেটার হাইটসে যাবে, এটা দিয়েই উনি (রাজাক) ওপেন করেছেন।
মঙ্গলবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ নাজিব বিন তুন হাজী আবদুল রাজাকের আমন্ত্রণে ৩ দিনের সরকারি সফরে মালয়েশিয়া যান। কুয়ালালামপুর পৌঁছনোর পর বাংলাদেশে হাইকমিশন আয়োজিত একটি সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে যোগ দেন শেখ হাসিনা। পরে হোটেলে মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ ও প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ দূত এস স্যামি ভেলুর সঙ্গে বৈঠক করেন তিনি।
বুধবার সকালে মালয়েশিয়ার ব্যবসায়ী ও উদ্যোক্তাদের নিয়ে আয়োজিত একটি সংলাপে বক্তব্য দেয়ার পর দ্বিপক্ষীয় বৈঠকের জন্য পুত্রাজায়ায় যান বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী। পুত্রাজায়ার পারদানা স্কয়ারে মালয়েশীয় প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পৌঁছালে শেখ হাসিনাকে উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান নাজিব রাজাক। প্রাথমিক আনুষ্ঠানিকতা শেষে দুই প্রধানমন্ত্রী রুদ্ধদ্বার বৈঠক করেন। রাতে মালয়েশিয়ার সরকার প্রধানের দেয়া একটি নৈশভোজেও অংশ নেন শেখ হাসিনা।

Print Friendly, PDF & Email