মাস্টারপ্ল্যান নিয়ে এগুবে আইসিটি মন্ত্রণালয়: পলক

0
365

Polok
ঢাকা: দেশে তথ্যপ্রযুক্তিতে অর্জনের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে মাস্টারপ্ল্যান তৈরির উদ্যোগ নিচ্ছে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ। এছাড়াও আইসিটি পলিসি-২০১৫, ই-সার্ভিস আইন প্রণয়ন, হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ বিধিমালা, ওয়ান স্টপ সার্ভিস সেন্টার, সাইবার সিকিউরিটি গাইডলাইন প্রণয়ন, সাইবার সিকিউরিটি আইন প্রণয়নের উদ্যোগও নেয়া হচ্ছে। সোমবার সকালে বিসিসি ভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে বিগত এক বছরের অর্জন এবং আগামী ৪ বছরে পরিকল্পনা তুলে ধরতে গিয়ে এমন তথ্য দেন আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক।
সংবাদ সম্মেলনে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা ও কর্মপন্থা প্রসঙ্গে জুনাইদ আহমেদ পলক বলেন, কোরিয়া সরকারের সহায়তায় আইসিটি মাস্টারপ্ল্যান তৈরি করা হবে। সারাদেশের সব মানুষকে একটি নাম্বারে নাগরিক সেবা সম্পর্কিত তথ্য প্রদানের উদ্দেশে ন্যাশনাল কল সেন্টার তৈরি করা হবে। অনলাইনে সেবা প্রদানের কলেবর দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। ফলে ডেটা সেন্টারের ক্রমবর্ধমান চাহিদা পূরণের লক্ষে বিশ্বের ৫ম বৃহত্তম টায়ার-৪ (Tier-4) সার্টিফায়েড ডেটা সেন্টার গড়ে তোলা হবে এবং সেখানে ক্লাউড কম্পিউটিং প্রযুক্তি সংযোজন করা হবে।
পলক বলেন, ডিজিটাল সংযোগ প্রকল্পের অধীনে ইউনিয়ন পর্যায় পর্যন্ত ব্রডব্যান্ড কানেকটিভিটি স্থাপন করা হবে। কয়েক ট্রিলিয়ন ডলারের মার্কেটে নিজেদের অবস্থান পোক্ত করার জন্য মোবাইল গেমস সংশ্লিষ্ট প্রকল্প ও কর্মসূচি গ্রহণ করে নিজেদেরকে তৈরি করে নেয়া হচ্ছে। চলমান মোবাইল অ্যাপস কর্মসূচির অভিজ্ঞতার আলোকে এবং মোবাইল অ্যাপস কর্মসূচির বিকাশের স্বার্থে একটি পূর্ণাঙ্গ প্রকল্প হাতে নেয়া হচ্ছে। একটি যুগোপযোগী সাইবার সিকিউরিটি আইন প্রণয়নের কাজ শুরু হয়েছে। পাশাপাশি একটি পূর্ণাঙ্গ সাইবার সিকিউরিটি এজেন্সি স্থাপন করা হবে। বর্তমান বিশ্বে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ তথ্যপ্রযুক্তির নানাবিধ ব্যবহারের ফলে প্রতিদিন আগের চেয়ে আরো অনেকগুণ বেশি তথ্য আদান-প্রদান হচ্ছে। ফলে বিগ ডেটা অ্যানালিটিকস একটি সম্ভাবনাময় খাত। এই খাতে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে বিগ-ডেটা অ্যানালিটিকস ল্যাব স্থাপন করা হবে এবং এই বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদানের ব্যবস্থা করা হবে। সারাদেশে আরো ১০টি সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্ক স্থাপন করা হবে। আমাদের দেশে উৎপাদিত এবং বিদেশ থেকে আমদানিকৃত সফটওয়্যারগুলোর মান নির্ধারণের জন্য সফটওয়্যার সার্টিফিকেশন সেন্টার স্থাপন করা হবে। নতুন উদ্যোক্তাদের সহযোগিতা করার জন্য ইনকিউবেশন স্থাপন করা হবে।

Print Friendly, PDF & Email