মৌলভীবাজারে কিশোরী ধর্ষণের অভিযোগে আটক দুই

0
152

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরীকে চা-বাগানে নিয়ে পালাক্রমে ধর্ষণের অভিযোগে দুইজনকে আটক করেছে থানা পুলিশ। আটককৃতরা হলো, উপজেলার ভাড়াউড়া চাবাগানের মৃত অনিল দোষাদের ছেলে কৈলাশ দোষাদ (২৫) ও একই চাবাগানের মৃত পূজনা মৃধার ছেলে জহর লাল মৃধা (২৯)। তারা দুজনই ওই চা-বাগানের নাইট চৌকিদার বলে জানা গেছে। শুক্রবার রাত সাড়ে ৯টায় শহরতলীর বধ্যভূমি-৭১ সংলগ্ন ভাড়াউড়া চা-বাগানের ভেতরে ধর্ষণের এ ঘটনা ঘটে।

শ্রীমঙ্গল থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত সোহেল রানা জানান, তার নেতৃত্বে ঘটনার পরেই অভিযান চালিয়ে অভিযুক্ত দুই ধর্ষককে আটক করতে সক্ষম হয়। অপর অভিযুক্ত টমটম চালককে শনাক্ত ও গ্রেফতারের জন্য পুলিশ বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালাচ্ছে বলেও তিনি জানান।

তিনি আরো জানান, শুক্রবার সন্ধ্যার পর একই এলাকার বাসিন্দা আঞ্জব আলীর ছেলে অটোরিকশা চালক ইয়াকুব আলী (১৬) কিশোরীকে নিয়ে বধ্যভূমি-৭১ এলাকায় বেড়াতে যায়। সেখানে রাত ৯টা পর্যন্ত অবস্থান করে রাস্তার পাশে ঝালমুড়ি খাওয়া অবস্থায় অপরিচিত এক টমটম চালক বাসায় পৌঁছে দিবে বলে তাদেরকে টমটমে উঠায়।

এ সময় আগে থেকে সেখানে অবস্থান করা আটককৃত দুই ধর্ষক টমটমে উঠে ভাড়াউড়া চা-বাগানের নির্জন স্থানে তাদেরকে নিয়ে যায়। সেখানে ধর্ষকরা মেয়েটির সাথে থাকা ইয়াকুবকে রশি দিয়ে বেঁধে টমটমে আটকে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করে। রাত সাড়ে দশটার দিকে কিশোরী ও ইয়াকুবকে বধ্যভূমির কাছাকাছি রাস্তায় নামিয়ে তারা টমটম নিয়ে পালিয়ে যায়।

ঘটনা জানার পর মেয়েটির মা রাতেই থানায় মৌখিকভাবে অভিযোগ করেন। পরে পুলিশ অভিযান চালিয়ে ভাড়াউড়া চা-বাগান থেকে অভিযুক্তদের আটক করে।

শ্রীমঙ্গল থানার অফিসার ইনচার্জ মো.আব্দুছ ছালেক বলেন, ‘ধর্ষণের অভিযোগে দুজনকে থানায় নিয়ে আসার পর ধর্ষণের শিকার মেয়েটি ও তার সঙ্গে থাকা ইয়াকুব দুজনকে শনাক্ত করেছে। এ ঘটনায় মামলার প্রস্ততি চলছে।

Print Friendly, PDF & Email