মৌলভীবাজার সরকারী কলেজে ছাত্রদল-ছাত্রলীগ সংঘর্ষ। স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠান পন্ড, নিহত ১

0
85
নিহত শাবাব (২৩)

মৌলভীবাজার জেলা প্রতিনিধিঃ গতকাল ২৬শে মার্চ/২০১২ইং সালে মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ ছাত্রদল কলেজ ক্যাম্পাসে স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে এক আলোচনা সভা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেের আয়োজন করা হয়। মৌলভীবাজার সরকারি কলেজের ছাত্রদল সভাপতি মোঃ আব্দুল্লাহ এর সভাপতিত্বে বি, এন, পি মৌলভীবাজার জেলার সাধারন সম্পাদক ফজলুল করিম ময়ুনের উপস্থিতিতে বেলা-৩.০০ ঘটিকার সময় সভা শুরুর পর ছাত্রলীগ মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ শাখার সেক্রেটারী বেলাল হোসেনের নেতৃত্বে একটি বক্তব্যের সুত্র ধরে ছাত্রলীগ নেতা কর্মীরা উত্তেজিত হয়ে এ ধরনের বক্তব্যের তীব্র প্রতিবাদ জানায়।

বাক বিতন্ডার এক পর্য্যায়ে উভয় পক্ষ সংঘর্ষে জড়ালে জেলা নেতৃবৃন্দকে ছাত্রদলের নেতা কর্মীরা নিরাপত্তা বেষ্টনী দিয়ে নিরাপদ স্থানে নিয়ে যায়। ঘটনাস্থল রনক্ষেত্রে পরিনত হয়। উভয় পক্ষের বেশ কিছু নেতাকর্মী গুরুতর আহত হয়। এর মধ্যে ছাত্রলীগ কর্মী শাবাব ধারালো অস্ত্রের দ্বারা মারাত্মক আহত হলে দ্রুত তাকে মৌলভীবাজার সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হলে কর্তব্যরত ডাক্তাররা গভীর জখম থাকায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সিলেট এম, এ, জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তির পরামর্শ দিলে তাকে সিলেট নিয়ে যাওয়ার পথে শাবাব মৃত্যু বরণ করে। ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে ছাত্রদল মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ শাখার সভাপতি মোঃ আব্দুল্লাহ, ছাত্রদল উক্ত কলেজ শাখার দপ্তর সম্পাদক মোঃ শফিউল করিম চৌধুরী, ছাত্রদল কর্মী ওয়াজেদ, মাসুম, আফজল, সিহাদুল হাসান সহ ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা রুজু করে। পুলিশ অভিযান চালিয়ে মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ ছাত্রদলের দপ্তর সম্পাদক মোঃ শফিউল করিম চৌধুরী, ছাত্রদল কর্মী জহির ও জুবায়ের কে গ্রেফতার করেছে। তাদেরকে পুলিশ আদালতে সোপর্দ করে ৭দিনের রিমান্ড চাইলে বিজ্ঞ আদালত ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন। ছাত্রলীগের নেতৃ বৃন্ধের দাবী রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনে ছাত্রলীগের সক্রিয় কর্মী শাবাব কে হত্যা করেছে ছাত্রদল সন্ত্রাসীরা।

অন্যদিকে ছাত্রদল ও বি, এন,পি নেতৃবৃন্দ জানান স্বাধীনতা দিবসের অন্ষ্টুান পন্ড করতে ছাত্রলীগ নেতা বেলাল হোসেনের নেতৃত্বে ছাত্রলীগ সন্ত্রসীরা আকস্মিক হামলা করে এবং ছাত্রদলের ৫/৬ নেতা কর্মীকে গুরুতর আহত করে। সমাবেশ করতে না দিয়ে তারা গনতান্ত্রিক অধিকার হরণ করেছে। তাছাড়া শাবাব ছাত্রদলের কোন সদস্যের হাতে নিহত হয়নি। ছাত্রলীগ নেতা বেলাল হোসেন ছাত্রদলের দপ্তর সম্পাদক মোঃ শফিউল করিম চৌধুরীকে রামদা দিয়ে হাতে আঘাত করে। ২য় আঘাত সজোরে কোপ মারলে শফিউল সরে গেলে উক্ত কোপ শাবাবের দেহে পড়ে গভীর জখম হয়। ছাত্রদলের পক্ষে এখনও কোন মামলা রুজু হয়নি। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। কলেজ অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ ঘোষনা করে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন অধ্যক্ষ।

Print Friendly, PDF & Email