রাষ্ট্রের প্রশ্রয়েই বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উত্তরার খালে ফেলা হয়েছিল: বিএনপি

0
150

ঢাকা: অশুভ উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রের প্রশ্রয়েই বিপুল পরিমাণ অস্ত্র ও গুলি উত্তরার খালে ফেলা হয়েছিল বলে মন্তব্য করেছে বিএনপি। বুধবার দুপুরে নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে দলটির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী এ মন্তব্য করেন।

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, রাজধানীর উত্তরার ১৬ নং সেক্টরের একটি খাল থেকে গত রোব ও সোমবার বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধারের পর পুলিশ কমিশনার কোনো প্রকার তদন্ত ছাড়াই বিএনপি ও বিরোধী দলগুলোকে উদ্দেশ্য করে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা শুধু অনভিপ্রেতই নয়, তার বক্তব্য প্রধানমন্ত্রীর স্বভাবসূলভ বক্তব্যের সমতুল্য। তার বক্তব্যে আওয়ামী নেতাদের বক্তব্যেরই প্রতিধ্বনি হয়েছে। মনে হয়েছে ঢাকার পুলিশ কমিশনার আওয়ামী লীগ নামীয় দলটির পোর্টফোলিও হোল্ডার। পৃথিবীর কোনো দেশে যেখানে ন্যুনতম আইনের শাসন আছে সেখানে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারীরা দায়িত্বশীল বক্তব্য রাখেন, ক্ষমতাসীন রাজনৈতিক প্রভুদের অন্যায় আচরণের নির্লজ্জ অনুসরণ করেন না।

তিনি বলেন, যে অস্ত্র-গুলি উদ্ধার হয়েছে, এধরনের অস্ত্র-গুলি মূলত: আইন শৃঙ্খলা বাহিনীই আমদানী ও ব্যবহার করে থাকে। উদ্ধারকৃত অস্ত্র-গুলি রাষ্ট্রীয় নিরাপত্তা বাহিনীরাই ব্যবহার করে থাকে। পিস্তলগুলোর মধ্যে ৯৫টিই ৭.৬২ বেরের পিস্তল, যা পুলিশ ও আইন শৃঙ্খলা বাহিনীই ব্যবহার করে। এটি আর রহস্যের মধ্যে নেই-ক্রমাগতভাবে রহস্যের কুয়াশা ভেদ করে মানুষের মনে স্পষ্ট হয়ে উঠছে যে, আইন প্রযোগকারী সংস্থার সহযোগিতা ছাড়া তুরাগ নদীর খালে এ অস্ত্রগুলো পৌঁছাতো না।

রিজভী বলেন, এই অস্ত্র-গুলি আনা হয়েছিল অপরাধীদের জন্য যারা অপরাধ সংঘটন করে। মানুষের মনে আরও সন্দেহ তীব্র হয়ে উঠেছে যে, কীভাবে প্রকাশ্য দিনের বেলায় নম্বরছাড়া একটি কালো রঙের পাজারো গাড়ি এই বিপুল অস্ত্র খালে ফেলে চলে গেল। কারণ, এলাকাটি তিন স্তরবিশিষ্ট নিরাপত্তা বেষ্টনির মধ্যে আবদ্ধ। সুতরাং অশুভ উদ্দেশ্যে রাষ্ট্রের প্রশ্রয়ে এই বিপুল পরিমাণ অস্ত্র খালে ফেলা হয়েছিল বলে জনগণ বিশ্বাস করে। সন্দেহভাজন জঙ্গি ধরা, রিমান্ডে নিয়ে ক্রসফায়ারে হত্যা এবং উত্তরার খালে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার একই যোগসূত্রে গাঁথা একটি মহাপরিকল্পনার অংশ।

Print Friendly, PDF & Email