রাষ্ট্র, স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র থাকতেও আমরা অসহায়: সুরঞ্জিত

0
330

suronjit 01
ঢাকা: আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদ সদস্য সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেছেন, ‘সিলেটে অনন্ত বিজয়কে প্রকাশ্য দিবালোকে চাপাতি দিয়ে মেরে চাপাতি ব্যাগে করে নিয়ে চলে গেল তারা। আর রাষ্ট্র, স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র এত রাষ্ট্র থাকতেও অসহায় হয়ে বসে রইলাম আমরা।’ রাজধানীর ইনস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে শুক্রবার নৌকা সমর্থকগোষ্ঠী আয়োজিত চলমান রাজনীতি বিষয়ক এক আলোচনা সভায় এ কথা বলেন তিনি।
সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত বলেন, ‘অভিজিৎ হত্যার পর তারা ক্ষ্যান্ত হন নাই। এখন আবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর হুমকি এসেছে। ওসি বলছেন, চিন্তা করেন না। অভিজিৎও চিন্তা করে নাই। কিন্তু অবশেষে দেখা গেল ওরা প্রাণ দিল। এই যে তাদের হাত লম্বা হচ্ছে এই বিষয়ে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনা বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। এটি ধারাবাহিকতায় আরেকটি পদক্ষেপ মাত্র। কার্যকর পদক্ষেপ আমরা চাই। দেশবাসী চায়।’
তিনি বলেন, ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আশা দিয়েও কাউকে এখনো ধরতে পারেননি। উগ্রবাদীরা নতুন প্রযুক্তিতে অনেক শক্তিশালী। এ ব্যাপারে সরকারকে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে। শুধু নিষিদ্ধ করলে হবে না। গ্রেফতার করতে হবে। এ সরকার যখন সার্থকতার সঙ্গে সকল বিষয় সমাধান করেছে। এটিও করবে।’
আওয়ামী লীগের এ উপদেষ্টা বলেন, ‘বেগম খালেদা জিয়া দল পুনর্গঠন করবেন। দল পুনর্গঠনের আগে রাজনীতি মূল্যায়ন করতে হবে। পেট্রোলবোমা-যুদ্ধাপরাধী বাদ দিতে হবে। উগ্রবাদী জামায়াতের সঙ্গ ছাড়তে হবে। বেগম খালেদা জিয়াকে বাস্তবতা মেনে নিয়েই সাংবিধানিক রাজনীতি করতে হবে।’
আওয়ামী লীগের প্রবীণ এ নেতা বলেন, সিঙ্গাপুর ও মালয়েশিয়ার সময় উগ্রবাদী রাজনীতির রূপ তখন ছিল না। শেখ হাসিনা শেখ হাসিনার মতো। গণতন্ত্র ও উন্নয়ন একটি আরেকটির পরিপূরক ও সম্পূরক। শেখ হাসিনা গণতন্ত্র ও উন্নয়ন বিশ্বাস করেন। তিনি আলাদা একটি মডেল হয়ে দাঁড়িয়েছেন। সংগঠনের সভাপতি ডা. এমদাদুল হক সেলিমের সভাপতিত্বে সভায় সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Print Friendly, PDF & Email