রিট ও ক্রিমিনাল মামলার শুনানি নির্ধারিত বেঞ্চে হবে: প্রধান বিচারপতি

0
163

ঢাকা: রিট ও ক্রিমিনাল মামলা শুনানির জন্য যে কোর্টের নাম উল্লেখ থাকবে সেখানে ছাড়া অন্য কোনো হাইকোর্ট বেঞ্চকে মামলা না শোনার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধান বিচারপতি। এটর্নি জেনারেল আদালতকে বলেছেন, বিচার বিভাগের স্বচ্ছতার জন্য বিচাপতিদের পরিবারের সদস্যদের প্র্যাকটিস করা উচিত নয়। এজন্য নীতিমালা হওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি বাংলাদেশ লিমিটেডের জেনারেল ম্যানেজার আরশাদ হোসেনের বিরুদ্ধে দায়ের করা অর্থ পাচার মামলায় হাইকোর্টের দেওয়া আদেশের বিরুদ্ধে আবেদন করে দুদক। তবে ২০০ দিন বিলম্বের কারণ জানতে চায় আপিল বিভাগ।
বিলম্বের কারণ সম্পর্কে এটর্নি জেনারেল বলেন, দুদকসহ বিভিন্ন মামলায় নোটিশ দেওয়ার সময়ে ভুল বেঞ্চের কথা বলা হয়। এমনকি যে বেঞ্চের কথা বলা হয় সেখানে না হয়ে অন্য কোথাও শুনানি হয়। যা হচ্ছেও নিয়মিত। এ কারণে আপিল করতে দেরি হয়ে যায়। বিষয়টি জেনে প্রধান বিচারপতি তার একান্ত সচিব আনিসুর রহমানকে ডেকে নিয়ে আদালতেই লিখিত নির্দেশনা দেন।

এ বিষয়ে দুদকের আইনজীবী সৈয়দ মামুন মাহবুব জানান, রিট ও ক্রিমিনাল মোশন শোনার জন্য যে বেঞ্চের নাম উল্লেখ থাকবে সেখানেই শুনানি হবে, অন্য বেঞ্চে ওই মোশনের শুনানি হবে না।

বিষয়টি নিশ্চিত করে প্রধান বিচারপতির একান্ত সচিব আনিসুর রহমান বলেন, আগে না থাকলেও এখন থেকে বেঞ্চের নাম উল্লেখ করে দিতে বলা হয়েছে। প্রয়োজনীয় দাপ্তরিক কাজ শেষে আগামীকাল থেকে প্রধান বিচারপতির আদেশ সংক্রান্ত চিঠি হাইকোর্ট বেঞ্চের প্রত্যেক বিচারপতির কাছে পাঠানো হতে পারে বলে জানান তিনি।

এই আদেশের পরে এটর্নি জেনারেল বিচারপতিদের পরিবারের সদস্যদের প্র্যাকটিস করার বিষয়ে নিজের উদ্বেগের কথা জানান আপিল বিভাগকে। তিনি বলেন, বার এ নিয়ে বিব্রত ও লজ্জিত। এ ধরনের বক্তব্য দেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন দুদকের আইনজীবী সৈয়দ মামুন মাহবুব।

পরে এ বিষয়ে এটর্নি জেনারেল বলেন, বিচার বিভাগের স্বচ্ছতার জন্য বিচারপতিদের স্ত্রী, পুত্র কন্যাসহ পরিবারের সদস্যদের প্র্যাকটিস করা উচিত নয়। প্রয়োজনে বিধি বা নীতিমালা হওয়া উচিত বলে মনে করেন তিনি। তবে এ নিয়ে কোন মন্তব্য করেননি প্রধান বিচারপতি।

Print Friendly, PDF & Email