রূপগঞ্জে বোমা বানাতে গিয়ে ৪ ‘ছাত্রলীগ কর্মী’ আহত

0
204

Logo Chatra Lige 01
নিউজ ডেস্ক: নারায়নগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার ছোনাব এলাকায় বোমা বানাতে গিয়ে ইউনিয়ন ছাত্রলীগের ৪ কর্মী গুরুতর আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। বুধবার গভীর রাতে ছাত্রলীগ নেতা শাহীন মিয়ার নিয়ন্ত্রনাধীন একটি ঝুটের গোডাউনে বোমা বানানোর সময় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতালসহ স্থানীয় ক্লিনিকে ভর্তি করা হয়েছে।
পুলিশ স্থানীয়দের বরাত দিয়ে জানায়, গত বুধবার রাত ২টার দিকে ছোনাব এলাকার ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা শাহিন মিয়ার ঝুটের গোডাউনে বোমা বিস্ফোরণের শব্দ শুনতে পায় এলাকাবাসী। পরে খবর পেয়ে ভুলতা পুলিশ ফাঁড়ি ঘটনাস্থলে গিয়ে জানতে পারে সেখানে বোমা বানানোর সময় রকমতউল্লাহ, শাহীন মিয়া, কবিরসহ ৪ জন গুরুতর হয়েছেন। এদের মধ্যে উপজেলার ছোনাব এলাকার ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আব্দুল হাই মিয়ার ছেলে রকমতউল্লাহকে (২৭) আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজধানীর পঙ্গু হাসপাতাল ভর্তি করা হয়েছে।
এদিকে বৃহস্পতিবার সকালে গোটা উপজেলায় রকমতউল্লাহর মৃত্যুর গুজব ছড়িয়ে পড়ে। তবে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত তার মৃত্যুর সংবাদ নিশ্চিত হওয়া যায়নি। ঘটনার পর থেকেই আহতদের পরিবারের লোকজন এলাকা থেকে গা-ঢাকা দিয়েছে। এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান সজিবের সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, তারা ছাত্রলীগের কেউ নয়। ওরা ছাত্রদলের নেতা। কোনদিন ছাত্রলীগ কিংবা আওয়ামী লীগের কোন মিটিং মিছিলে তাদেরকে দেখিনি।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আমির হোসেন ভূইয়া বলেন, ওরা ছাত্রলীগের কর্মী নয়। কাগজে-পত্রে ওদের নাম নেই।
অপরদিকে, নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও থানা বিএনপির সভাপতি কাজী মনিরুজ্জামান মনির বলেন, এই ঘটনা প্রমাণ করেছে দেশব্যাপী আওয়ামী লীগ বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটিয়ে বিএনপি নেতাকর্মীদের সন্ত্রাসী বানানোর অপচেষ্টা করছে। জনগণ একদিন আওয়ামী লীগকে সমুচিত জবাব দিবে।
রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মাহমুদুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা স্বীকার বলেন, বোমা বানাতে গিয়ে মাদ্রাসা ছাত্রসহ ৩ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে রকমতুল্লা নামে একজনকে গুরুতর অবস্থায় পঙ্গু হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জেনেছি। তবে সে মারা গেছে কিনা এ ব্যাপারে এখনো নিশ্চিত হতে পারিনি।

Print Friendly, PDF & Email